করোনা আবহে পুরোপুরি বিপর্যস্ত আবাসন শিল্প, দেশের প্রথম ৮ শহরে বাড়ি বিক্রি কমল ৭৯ শতাংশ

First Published 28, Jul 2020, 8:06 PM

দেশের বিভিন্ন শিল্পের মতোই করোনার হানায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে আবাসন শিল্প। ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে এই শিল্পের সঙ্গে যুক্ত সংশ্লিষ্টরা। বেকার হয়ে পড়েছেন লাখ লাখ শ্রমিক। উদ্যোক্তারা চোখে দেখছেন অন্ধকার। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, ক্ষতি করে কিংবা দামের দামে তৈরি ফ্ল্যাট বেচে দিচ্ছেন শিল্পপতিরা। গত এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে দেশের সেরা ৮ শহরে ৭৯ শতাংশ কমেছে বাড়ি বিক্রি। এমন আশঙ্কার খবরই শুনিয়েছে রিয়েল এস্টেটে দালালির সঙ্গে যুক্ত সংস্থা প্রোপাইগার।

<p><strong>সাম্প্রতিক রিপোর্ট "রিয়েল এস্টেট: কিউ২ ২০২০" তে জানান হয়েছে চলতি বছর এমনিতেই আবাসন শিল্পে ভাটা দেখা দিয়েছিল। জানুয়ারি থেকে জুনের মধ্যে বিক্রি ৫২ শতাংশ কমে আটটি শহরে তা ৮৮,৫৯৩ ইউনিটে দাঁড়িয়েছে।</strong></p>

সাম্প্রতিক রিপোর্ট "রিয়েল এস্টেট: কিউ২ ২০২০" তে জানান হয়েছে চলতি বছর এমনিতেই আবাসন শিল্পে ভাটা দেখা দিয়েছিল। জানুয়ারি থেকে জুনের মধ্যে বিক্রি ৫২ শতাংশ কমে আটটি শহরে তা ৮৮,৫৯৩ ইউনিটে দাঁড়িয়েছে।

<p><strong>এই ৮টা শহরের তালিকায় রয়েছে আহমেদাবাদ, বেঙ্গালুরু, চেন্নাই, হায়দরাবাদ, কলকাতা, দিল্লি-এনসিআর (যার মধ্যে রয়েছে নয়দা, গ্রেটার নয়ডা, গুরগ্রাম, গাজিয়াবাদ ও ফরিদাবাদ), বৃহন্মুম্বই (যার মধ্যে রয়েছে মুম্বই, নভি মুম্বই, থানে) এবং পুনে।</strong></p>

এই ৮টা শহরের তালিকায় রয়েছে আহমেদাবাদ, বেঙ্গালুরু, চেন্নাই, হায়দরাবাদ, কলকাতা, দিল্লি-এনসিআর (যার মধ্যে রয়েছে নয়দা, গ্রেটার নয়ডা, গুরগ্রাম, গাজিয়াবাদ ও ফরিদাবাদ), বৃহন্মুম্বই (যার মধ্যে রয়েছে মুম্বই, নভি মুম্বই, থানে) এবং পুনে।

<p><strong>পরিসংখ্যান অনুযায়ী হায়দরবাদে চলতি বছর এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে আবাসন শিল্পে বিক্রি কমেছে ৮৬ শতাংশ। গত বছর যেখানে সংখ্যা ছিল ৮,১২২, সেখানে চলতি বছর সংখ্যাটা মাত্র ১,০৯৯।</strong></p>

পরিসংখ্যান অনুযায়ী হায়দরবাদে চলতি বছর এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে আবাসন শিল্পে বিক্রি কমেছে ৮৬ শতাংশ। গত বছর যেখানে সংখ্যা ছিল ৮,১২২, সেখানে চলতি বছর সংখ্যাটা মাত্র ১,০৯৯।

<p><strong>মুম্বইতে দ্বিতীয় কোয়ার্টারে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৮৫ শতাংশ। গত বছর যেখানে সংখ্যাটা ছিল ২৯,৬৩৫ ইউনিট। এবছর সেখানে সংখ্যাটা হয়েছে মাত্র ৪,৫৫৯।</strong><br />
 </p>

মুম্বইতে দ্বিতীয় কোয়ার্টারে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৮৫ শতাংশ। গত বছর যেখানে সংখ্যাটা ছিল ২৯,৬৩৫ ইউনিট। এবছর সেখানে সংখ্যাটা হয়েছে মাত্র ৪,৫৫৯।
 

<p><strong>আহমেদাবাদের চিত্রটাও একইরকম। চলতি বছর এপ্রিল-জুনে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৮৩ শতাংশ। গতবছর এই সময়ে যেখানে বিক্রি হয়েছিল ৬,৭৮৪ ইউনিট। এবছর সেখানে হয়েছে মাত্র ১,১৮১ ইউনিট।</strong><br />
 </p>

আহমেদাবাদের চিত্রটাও একইরকম। চলতি বছর এপ্রিল-জুনে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৮৩ শতাংশ। গতবছর এই সময়ে যেখানে বিক্রি হয়েছিল ৬,৭৮৪ ইউনিট। এবছর সেখানে হয়েছে মাত্র ১,১৮১ ইউনিট।
 

<p><strong>রাজধানী দিল্লিতেও আবাসন শিল্পে ক্ষতির পরিমাণ ৮১ শতাংশ। গতবছর যেখানে এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে বিক্রি হয়েছিল ৯,৭৫৯ ইউনিট, এবার সেখানে সংখ্যাটা মাত্র ১,৮৮৬ ইউনিট।</strong></p>

রাজধানী দিল্লিতেও আবাসন শিল্পে ক্ষতির পরিমাণ ৮১ শতাংশ। গতবছর যেখানে এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে বিক্রি হয়েছিল ৯,৭৫৯ ইউনিট, এবার সেখানে সংখ্যাটা মাত্র ১,৮৮৬ ইউনিট।

<p><strong>কলকাতা বাড়ি বিক্রি গত বছরের তুলনায় কমেছে ৭৫ শতাংশ। গতবছর এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে বিক্রি হয়েছিল ৫২৬৮ ইউনিট। এবার সেই সংখ্যা ১,৩১৭।</strong></p>

কলকাতা বাড়ি বিক্রি গত বছরের তুলনায় কমেছে ৭৫ শতাংশ। গতবছর এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে বিক্রি হয়েছিল ৫২৬৮ ইউনিট। এবার সেই সংখ্যা ১,৩১৭।

<p><strong>পুনেতে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৭৪ শতাংশ। আর তথ্যপ্রযুক্তি নগরী বেঙ্গালুরুতে সংখ্যা ৭৩ শতাংশ। চেন্নাইতে আবাসন শিল্পে বিক্রি কমেছে ৭০ শতাংশ।</strong></p>

পুনেতে বাড়ি বিক্রি কমেছে ৭৪ শতাংশ। আর তথ্যপ্রযুক্তি নগরী বেঙ্গালুরুতে সংখ্যা ৭৩ শতাংশ। চেন্নাইতে আবাসন শিল্পে বিক্রি কমেছে ৭০ শতাংশ।

loader