কী ভাবে খরচ করবেন কেন্দ্রের দেওয়া উৎসব বোনানজার টাকা, লাভের মুখ দেখবে সরকার

First Published 13, Oct 2020, 11:16 AM

 দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে উৎসবের মরশুমকেই বেছে নিয়েছে  কেন্দ্রীয় সরকার। খরচ করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের দেওয়া হচ্ছে টাকা। আর এরই মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদেরই নয়, দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে সহজ কিস্তিতে রাজ্যগুলিকেই আর্থিক সুবিধে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। 

<p><strong>সরকারি কর্মীদের নগদ জোগান<br />
কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী, রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্ক, রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থার কর্মীদের জন্য এলটিসির টাকা নগদে দেওয়ার প্রকল্প। &nbsp;২০১৮-২১ এর মধ্যে এলটিসি না নিলে নগদ নেওয়ার সুবিধে।</strong></p>

সরকারি কর্মীদের নগদ জোগান
কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী, রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্ক, রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থার কর্মীদের জন্য এলটিসির টাকা নগদে দেওয়ার প্রকল্প।  ২০১৮-২১ এর মধ্যে এলটিসি না নিলে নগদ নেওয়ার সুবিধে।

<p>&nbsp;<strong>শর্ত&nbsp;<br />
&nbsp;বিমান বা ট্রেনের ভাড়ার তিন গুণ টাকা বা লিভ এনক্যাশমেন্টের সমান টাকার জিনিসপত্র ২০২১ সালের ৩১ মার্চের আগে &nbsp;কিনতে হবে। এমন জিনিস কিনতে হবে যাতে ১২ শতাংশ বা তারও বেশি জিএসটি দিতে হয়।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

 শর্ত 
 বিমান বা ট্রেনের ভাড়ার তিন গুণ টাকা বা লিভ এনক্যাশমেন্টের সমান টাকার জিনিসপত্র ২০২১ সালের ৩১ মার্চের আগে  কিনতে হবে। এমন জিনিস কিনতে হবে যাতে ১২ শতাংশ বা তারও বেশি জিএসটি দিতে হয়। 

 

<p><strong>উৎসবের জন্য আগাম ১০ হাজার টাকা<br />
সার্বাধিক ১০টি কিস্তিতে শোধ দিতে হবে। স্টেট ব্যাঙ্কের রুপে কার্ডের মাধ্যমে দেওয়া হবে। এই কার্ড থেকে এটিএমএ টাকা তোলা যাবে না। শুধু কেনাকাটা করা যাবে। এই টাকাও খরচ করতে হবে ২০২১ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে।&nbsp;</strong></p>

<p>&nbsp;</p>

উৎসবের জন্য আগাম ১০ হাজার টাকা
সার্বাধিক ১০টি কিস্তিতে শোধ দিতে হবে। স্টেট ব্যাঙ্কের রুপে কার্ডের মাধ্যমে দেওয়া হবে। এই কার্ড থেকে এটিএমএ টাকা তোলা যাবে না। শুধু কেনাকাটা করা যাবে। এই টাকাও খরচ করতে হবে ২০২১ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে। 

 

<p><strong>সরকারের লাভ<br />
আর্থিক সুবিধে পাবে সরকার। কারণ বাজারে মোট ৭৩ হাজার কোটি টাকার চাহিদা তৈরি হবে। যা বেড়ে ১ লক্ষ কোটি টাকা পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

সরকারের লাভ
আর্থিক সুবিধে পাবে সরকার। কারণ বাজারে মোট ৭৩ হাজার কোটি টাকার চাহিদা তৈরি হবে। যা বেড়ে ১ লক্ষ কোটি টাকা পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে। 

 

<p><strong>কী ভাবে?&nbsp;<br />
কেনাকাটা বাড়তে পারে মোট ৩৬ হাজার কোটি টাকা। এলটিসি নগদ ভাঙানোর মাধ্যমে ২৭ হাজার কোটি টাকা। আর আর উৎসবের আগাম হিসেবে আগাম ৮ হাজার কোটি টাকা।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

কী ভাবে? 
কেনাকাটা বাড়তে পারে মোট ৩৬ হাজার কোটি টাকা। এলটিসি নগদ ভাঙানোর মাধ্যমে ২৭ হাজার কোটি টাকা। আর আর উৎসবের আগাম হিসেবে আগাম ৮ হাজার কোটি টাকা। 

 

<p><strong>বাড়তি খরচ<br />
পরিকাঠামো উন্নয়নে কেন্দ্রের খরচ করবে &nbsp;২৫ হাজার কোটি টাকা। সড়ক, প্রতিরক্ষা, পরিকাঠামো, দেশে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম, জল সরবরাহ নগরোন্নয়ে কেন্দ্র অতিরিক্ত টাকা খরচ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

বাড়তি খরচ
পরিকাঠামো উন্নয়নে কেন্দ্রের খরচ করবে  ২৫ হাজার কোটি টাকা। সড়ক, প্রতিরক্ষা, পরিকাঠামো, দেশে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম, জল সরবরাহ নগরোন্নয়ে কেন্দ্র অতিরিক্ত টাকা খরচ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

 

<p><strong>রাজ্যগুলিকে ঋণ<br />
রাজ্যগুলিকে ৫০ বছরের জন্য ১২ হাজার কোটি টাকা সুদমুক্ত ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উত্তর পূর্বের ৮টি রাজ্যের জন্য বরাদ্দ ১৬ হাজার কোটি টাকা। উত্তরাখণ্ড আর হিমাচলের জন্য ৯ হাজার কোটি টাকা।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

রাজ্যগুলিকে ঋণ
রাজ্যগুলিকে ৫০ বছরের জন্য ১২ হাজার কোটি টাকা সুদমুক্ত ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উত্তর পূর্বের ৮টি রাজ্যের জন্য বরাদ্দ ১৬ হাজার কোটি টাকা। উত্তরাখণ্ড আর হিমাচলের জন্য ৯ হাজার কোটি টাকা। 

 

<p><strong>সুবিধে পারেব বাকিরাও&nbsp;<br />
অন্যান্য রাজ্যের দন্য ৭৫০০ কোটি কাটা বরাদ্দ করা হয়েছে। অর্থ কমিশনের সূত্র মেনে ভাগ করা হবে। দুই কিস্তিতে ঋণ দেওয়া হবে।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

সুবিধে পারেব বাকিরাও 
অন্যান্য রাজ্যের দন্য ৭৫০০ কোটি কাটা বরাদ্দ করা হয়েছে। অর্থ কমিশনের সূত্র মেনে ভাগ করা হবে। দুই কিস্তিতে ঋণ দেওয়া হবে। 

 

<p><strong>পশ্চিমবঙ্গের ভাগে<br />
এই রাজ্য পেতে পারে ৫৬৮ কোটি টাকা। এক দেশ এক রেশন কার্ড, ব্যবসার সহজ পরিবেশসহ একাধিক ক্ষেত্রে রাজ্যগুলির জন্য আরও ৩ হাজার কোটি টাকা ধার্য করা হয়েছে।</strong></p>

পশ্চিমবঙ্গের ভাগে
এই রাজ্য পেতে পারে ৫৬৮ কোটি টাকা। এক দেশ এক রেশন কার্ড, ব্যবসার সহজ পরিবেশসহ একাধিক ক্ষেত্রে রাজ্যগুলির জন্য আরও ৩ হাজার কোটি টাকা ধার্য করা হয়েছে।

<p><strong>পরিকাঠামোয় খচর<br />
রাজ্যকে ঋণ ও কেন্দ্রের বাজ়তি খরচ মিলিয়ে অতিরিক্তি ৩৭ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে সরকারের খরচ হবে ২৫ হাজার কোটি টাকা।&nbsp;</strong></p>

পরিকাঠামোয় খচর
রাজ্যকে ঋণ ও কেন্দ্রের বাজ়তি খরচ মিলিয়ে অতিরিক্তি ৩৭ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে সরকারের খরচ হবে ২৫ হাজার কোটি টাকা। 

loader