লাদাখে লাল ফৌজকে আবারও টক্কর দিল ভারতীয় সেনা, চিনাদের আগে দখল করে নিল ৬টি পাহাড়

First Published 20, Sep 2020, 3:54 PM

ভারতকে আরও গর্বিত করল দেশের জওয়ানরা। কারণ চিনা আগ্রাসনের বিরুদ্ধে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল ভারতীয় জওয়ানরা। কারণ গত মাত্র তিন সপ্তাহের মধ্যে নতুন করে আরও ৬টি উচ্চতর পাহাড় দখল করেছে ভারত। যার মধ্যে রয়েছে মাগার পাহাড়, গুরুং হিল, রিচেং লা, রেজাং লা, মোখপাড়ি। এর ফলেই চিনা সেনাদের ওপর আরও ভালো করে ভারতীয় সেনা জওয়ানরা নজরদারি চালাতে পারবে বলেও দাবি করা হয়েছে।   

<p><strong>চিনা সেনার আগ্রাসনের প্রতিহত করে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল ভারতীয় সেনা। পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকায় আরও ভালো অবস্থানে রয়েছে ভারত। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকউ পাহাড়ের দখল নিয়েছে সেনা জওয়ানরা।&nbsp;</strong></p>

চিনা সেনার আগ্রাসনের প্রতিহত করে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল ভারতীয় সেনা। পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকায় আরও ভালো অবস্থানে রয়েছে ভারত। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকউ পাহাড়ের দখল নিয়েছে সেনা জওয়ানরা। 

<p><strong>২৯ অগাস্ট থেকে বিশে সেপ্টেম্বর- এক মাসেরও কম সময়ে ভারতীয় জওয়ানরা মোট ৬টি পাহাড়ের চূড়া নিজেদের দখলে এনেছে বলে সেনা সূত্রের খবর।&nbsp;</strong></p>

২৯ অগাস্ট থেকে বিশে সেপ্টেম্বর- এক মাসেরও কম সময়ে ভারতীয় জওয়ানরা মোট ৬টি পাহাড়ের চূড়া নিজেদের দখলে এনেছে বলে সেনা সূত্রের খবর। 

<p style="text-align: justify;"><strong>যেসব স্থানে ভারতের অবস্থান আরও মজবুত হয়েছে সেগুলি হল, মাগার, গুরুং হিল, রেচিং লা, রেজিং লা, মোখপাড়ি। এই এলাকাগুলিতে দুই দেশের সেনাই টার্গেট করেছিল। কিন্তু চিনাদের আগেই ভারত এগুলি দখল করে নিয়েছে।&nbsp;</strong></p>

যেসব স্থানে ভারতের অবস্থান আরও মজবুত হয়েছে সেগুলি হল, মাগার, গুরুং হিল, রেচিং লা, রেজিং লা, মোখপাড়ি। এই এলাকাগুলিতে দুই দেশের সেনাই টার্গেট করেছিল। কিন্তু চিনাদের আগেই ভারত এগুলি দখল করে নিয়েছে। 

<p><strong>প্যাংগং লেক &nbsp;৪ নম্বর ফিঙ্গার এলাকায় &nbsp;আগে থেকেই কৌশলগত উচ্চ অবস্থানে ছিল ভারত। আর সেখানে থেকে ভারতীদের সরাতে একাধিকবার প্ররোচনামূলত অচরণ করেছিল চিনা সেনা। আর সেই কারণে অগাস্টের শেষে গুলিও চলেছিল।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

প্যাংগং লেক  ৪ নম্বর ফিঙ্গার এলাকায়  আগে থেকেই কৌশলগত উচ্চ অবস্থানে ছিল ভারত। আর সেখানে থেকে ভারতীদের সরাতে একাধিকবার প্ররোচনামূলত অচরণ করেছিল চিনা সেনা। আর সেই কারণে অগাস্টের শেষে গুলিও চলেছিল। 
 

<p><strong>সেনা সূত্রে জানান হয়েছে কালা পাহাড় আর হেলমেট ভারতীয়দের দখলে থাকায় অস্বস্তি বাড়াচ্ছে চিনা সেনাদের। কারণ এই দুটি পাহাড় থেকে ভালো করে নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় জওয়ানরা।&nbsp;</strong></p>

সেনা সূত্রে জানান হয়েছে কালা পাহাড় আর হেলমেট ভারতীয়দের দখলে থাকায় অস্বস্তি বাড়াচ্ছে চিনা সেনাদের। কারণ এই দুটি পাহাড় থেকে ভালো করে নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় জওয়ানরা। 

<p><strong>&nbsp;ভারত উচ্চ স্থানগুলি দখলের পরেই সেনা তৎপরতা বাড়িয়েছে চিন &nbsp;রেচিং লা আর রেজাং লা থেকে খুব কাছে চুসুলের ভারতীয় সেনা ঘাঁটি। কিন্তু এই পাহাড়ের নিচেই চিন অতিরিক্ত ৩ হাজার সেনা মোতায়েন করেছে বলে সূত্রের খবর। পাশাপাশি বেশ কয়েকটা সাঁজোয়া গাড়িও মোতায়েন করা হয়েছে।</strong></p>

 ভারত উচ্চ স্থানগুলি দখলের পরেই সেনা তৎপরতা বাড়িয়েছে চিন  রেচিং লা আর রেজাং লা থেকে খুব কাছে চুসুলের ভারতীয় সেনা ঘাঁটি। কিন্তু এই পাহাড়ের নিচেই চিন অতিরিক্ত ৩ হাজার সেনা মোতায়েন করেছে বলে সূত্রের খবর। পাশাপাশি বেশ কয়েকটা সাঁজোয়া গাড়িও মোতায়েন করা হয়েছে।

<p><strong>&nbsp;বাকি উচ্চ এলাকাগুলিতে ভালোমত নজরদারি চালানো যাবে বলেও সূত্রের খবর। আর কৌশলগত অবস্থান হিসেবেও এই এলাকাগুলি অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ বলেও দাবি করা হয়েছে সেনা সূত্রে।&nbsp;</strong></p>

 বাকি উচ্চ এলাকাগুলিতে ভালোমত নজরদারি চালানো যাবে বলেও সূত্রের খবর। আর কৌশলগত অবস্থান হিসেবেও এই এলাকাগুলি অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ বলেও দাবি করা হয়েছে সেনা সূত্রে। 

<p><strong>সেনা সূত্রের খবর গত সপ্তাহ থেকেই মোলডো সংলগ্ন গ্যারিসন এলাকায় পুরোপুরি সক্রিয় হয়েছে চিন।&nbsp;</strong></p>

সেনা সূত্রের খবর গত সপ্তাহ থেকেই মোলডো সংলগ্ন গ্যারিসন এলাকায় পুরোপুরি সক্রিয় হয়েছে চিন। 

<p><strong>&nbsp;তবে &nbsp;ভারতীয় সেনা শিবিরের মতে চিনা আগ্রাসন প্রতিহত করার জন্য সর্বদা সতর্ক থাকতে হবে ভারতে। কারণ প্যাংগং-এর উত্তর প্রান্ত থেকে চুসুল পর্যন্ত বেশ কয়েকটি এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হয়েছে।&nbsp;</strong><br />
<strong>&nbsp;</strong></p>

 তবে  ভারতীয় সেনা শিবিরের মতে চিনা আগ্রাসন প্রতিহত করার জন্য সর্বদা সতর্ক থাকতে হবে ভারতে। কারণ প্যাংগং-এর উত্তর প্রান্ত থেকে চুসুল পর্যন্ত বেশ কয়েকটি এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হয়েছে। 
 

<p><strong>আগামী শীতকালে লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকায় চিনা বাহিনীর ওপর নজর রাখার জন্য ভারতীয় বাহিনী মোতায়েন থাকবে। সেনার পক্ষ থেকে আগেও জানান হয়েছে সবরকম পরিস্থিতির জন্য তৈরি রয়েছে সেনা জওয়ানরা।&nbsp;</strong><br />
&nbsp;</p>

আগামী শীতকালে লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকায় চিনা বাহিনীর ওপর নজর রাখার জন্য ভারতীয় বাহিনী মোতায়েন থাকবে। সেনার পক্ষ থেকে আগেও জানান হয়েছে সবরকম পরিস্থিতির জন্য তৈরি রয়েছে সেনা জওয়ানরা। 
 

loader