আগামী বছরের আগে দেশে আসছে না ভ্যাকসিন, সংসদীয় কমিটিকে জানিয়ে দিলেন সরকারি আধিকারিকেরাই

First Published 11, Jul 2020, 11:40 AM

২০২১ সালের আগে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরি করা সম্ভব নয়। সংসদীয় কমিটির কাছে  বিষয়টি স্পষ্ট করে দিল কেন্দ্রের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রক। সরকারেরই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের সংসদীয় কমিটির বৈঠকে ওই মন্ত্রকের কর্তারাই  কমিটির সদস্যদের জানিয়েছেন,  আগামী বছরের শেষের দিকে হয়তো আবিষ্কার হতে পারে করোনার টিকা। ফলে চলতি বছর স্বাধীনতা দিবসে করোনার টিকা বাজারে আসার কোনও সম্ভাবনাই নেই।

<p><strong>চলতি  মাসের শুরুতেই আইসিএমআর-এর তরফে ঘোষণা করা হয় যে, আগামী ১৫ অগাস্টের মধ্যে করোনার টিকা বাজারে আসবে।</strong></p>

চলতি  মাসের শুরুতেই আইসিএমআর-এর তরফে ঘোষণা করা হয় যে, আগামী ১৫ অগাস্টের মধ্যে করোনার টিকা বাজারে আসবে।

<p><strong>এই ঘোষণার পর, মাত্র পাঁচ সপ্তাহ সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন আবিষ্কারের প্রশ্নে ভাল-মন্দ বিচার না করেই কী করে তা বাজারে ছাড়া সম্ভব, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন দেশের গবেষক ও চিকিৎসকদের একটি বড় অংশ।</strong></p>

এই ঘোষণার পর, মাত্র পাঁচ সপ্তাহ সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন আবিষ্কারের প্রশ্নে ভাল-মন্দ বিচার না করেই কী করে তা বাজারে ছাড়া সম্ভব, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন দেশের গবেষক ও চিকিৎসকদের একটি বড় অংশ।

<p><strong>তবে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সংক্রান্ত সংসদীয় প্যানেলকে কেন্দ্রীয় সরকারের আধিকারিকরা জানিয়ে দিলেন, ২০২১ সালের আগে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরি করা সম্ভব নয়।</strong></p>

তবে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সংক্রান্ত সংসদীয় প্যানেলকে কেন্দ্রীয় সরকারের আধিকারিকরা জানিয়ে দিলেন, ২০২১ সালের আগে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরি করা সম্ভব নয়।

<p><strong>গোটা বিশ্বের গবেষকরাই ভ্যাকসিন তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছেন। এই কাজে পিছিয়ে নেই ভারতও। একসঙ্গে দু-দুটি ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে দেশে । শীঘ্রই শুরু হচ্ছে দুটিরই মানব পরীক্ষা।</strong></p>

গোটা বিশ্বের গবেষকরাই ভ্যাকসিন তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছেন। এই কাজে পিছিয়ে নেই ভারতও। একসঙ্গে দু-দুটি ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে দেশে । শীঘ্রই শুরু হচ্ছে দুটিরই মানব পরীক্ষা।

<p><strong>কিন্তু রাজ্যসভার প্যানেলকে সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ২০২১ সালের প্রথম ৩ মাসের মধ্যে হয়তো ভ্যাকসিন বের করা সম্ভব হবে। তা হলে এটাই হবে সবচেয়ে দ্রুত। এর আগে সম্ভব নয়।</strong></p>

কিন্তু রাজ্যসভার প্যানেলকে সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ২০২১ সালের প্রথম ৩ মাসের মধ্যে হয়তো ভ্যাকসিন বের করা সম্ভব হবে। তা হলে এটাই হবে সবচেয়ে দ্রুত। এর আগে সম্ভব নয়।

<p><strong>জানা গিয়েছে, সরকারি আধিকারিকরা সংসদীয় কমিটিকে জানিয়েছেন , ২০২১ সালের শুরুর দিকে বাণিজ্যিকভাবে করোনা ভ্যাকসিন মিলতে পারে। তবে সেই ভ্যাকসিন ভারতেও প্রস্তুত হতে পারে, আবার বাইরে থেকেও আনা হতে পারে। </strong></p>

জানা গিয়েছে, সরকারি আধিকারিকরা সংসদীয় কমিটিকে জানিয়েছেন , ২০২১ সালের শুরুর দিকে বাণিজ্যিকভাবে করোনা ভ্যাকসিন মিলতে পারে। তবে সেই ভ্যাকসিন ভারতেও প্রস্তুত হতে পারে, আবার বাইরে থেকেও আনা হতে পারে। 

<p><strong>এই অবস্থায় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির তরফে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের আধিকারিকদের সুলভ মূল্যে করোনা চিকিৎসার সরঞ্জাম তৈরিতে জোর দিতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে ৩০ হাজার টাকার মধ্যে ভেন্টিলেটর তৈরির কথা জানানো হয়েছে। স্থায়ী কমিটির মতে, দেশবাসীর স্বাস্থ্য নিরাপত্তা প্রতিরক্ষার মতোই গুরুত্বপূর্ণ।</strong></p>

এই অবস্থায় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির তরফে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের আধিকারিকদের সুলভ মূল্যে করোনা চিকিৎসার সরঞ্জাম তৈরিতে জোর দিতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে ৩০ হাজার টাকার মধ্যে ভেন্টিলেটর তৈরির কথা জানানো হয়েছে। স্থায়ী কমিটির মতে, দেশবাসীর স্বাস্থ্য নিরাপত্তা প্রতিরক্ষার মতোই গুরুত্বপূর্ণ।

<p><strong>ভারতে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবিলা ও ভ্যাকসিন প্রস্তুতির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কার্যকলাপ উপদেষ্টা কে বিজয়রাঘবন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রকের সংসদীয় স্থায়ী কমিটিকে ভ্যাকসিন তৈরি কোন অবস্থায় রয়েছে তা বিস্তারিত জানান। </strong></p>

ভারতে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবিলা ও ভ্যাকসিন প্রস্তুতির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কার্যকলাপ উপদেষ্টা কে বিজয়রাঘবন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রকের সংসদীয় স্থায়ী কমিটিকে ভ্যাকসিন তৈরি কোন অবস্থায় রয়েছে তা বিস্তারিত জানান। 

<p><strong>কেন্দ্রের গঠিত কোভিড-১৯ প্রস্তুতি সংক্রান্ত কমিটির সামনে  কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কার্যকলাপ উপদেষ্টা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ও বায়োটেকনলজি দফতরের শীর্ষ আধিকারিকরা ও সিএসআইআর অধিকর্তা। </strong></p>

কেন্দ্রের গঠিত কোভিড-১৯ প্রস্তুতি সংক্রান্ত কমিটির সামনে  কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কার্যকলাপ উপদেষ্টা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ও বায়োটেকনলজি দফতরের শীর্ষ আধিকারিকরা ও সিএসআইআর অধিকর্তা। 

loader