110

রবিবার রাত ৮টা ৪৫ মিনিট হঠাৎই নতুন সংসদ ভবনের নির্মাণকাজ (Parliament construction site) খতিয়ে দেখতে সেন্ট্রাল ভিস্তা নির্মাণ সাইটে (Central Vista redevelopment project) পৌঁছান মোদী। প্রায় ১ ঘণ্টা ওই এলাকায় ছিলেন। তাঁর এই সফরের কথা আগে থেকে কারও জানা ছিল না। ফলে প্রধানমন্ত্রীকে ওই এলাকায় দেখে কিছুটা হলেও অবাক হয়ে গিয়েছিলেন নির্মাণকর্মীরা। 

Subscribe to get breaking news alerts

210

মোদীর (PM Narendra Modi) পরনে ছিল সাদা কুর্তা ও চোস্ত পায়জামা। আর তার সঙ্গে মাথায় ছিল সেফটি হেলমেট ও মুখে মাস্ক। কাজ কোন পথে এগোচ্ছে তা ঘুরে দেখেন তিনি। সাইটের প্রায় সব জায়গাতেই যেতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। পাশাপাশি নির্মাণকর্মীদের সঙ্গেও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে কথা বলেন। 

 

310

৬৪ হাজার ৫০০ বর্গ কিলোমিটারের উপর তৈরি এই সংসদ ভবনের বাইরে ও ভিতরের অংশ সবটাকেই নতুন রূপে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে। একাধিক নতুন প্রযুক্তিও যুক্ত হবে এই ভবনের মধ্যে। আর সেই কারণেই নির্মাণকাজ পরিকল্পমা মাফিক হচ্ছে কিনা তাই নিজের চোখে দেখে গেলেন মোদী।  

410

পরিকল্পনা অনুযায়ী, স্মার্ট ডিসপ্লে, বায়োমেট্রিক সহ গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস, ডিজিটাল ভাষা অনুবাদক ও রেকর্ডিংয়ের ব্যবস্থা থাকবে এই ভবনে। এছাড়াও স্পীকারের নিয়ন্ত্রাণাধীন মাইক্রোফোনের (programmable microphones) ব্যবস্থাও থাকবে। সংসদ ভবনটি তৈরি করতে খরচ হবে ৯৭০ কোটি টাকা।

 

510

সংসদ ভবনের পাশাপাশি একটি সাধারণ সচিবালয়, প্রধানমন্ত্রী নতুন বাসভবন ও দফতর এবং রাজপথ থেকে রাষ্ট্রপতি ভবন পর্যন্ত তিন কিলোমিটার রাস্তা পুনর্গঠন করা হবে। পুরনো সংসদ ভবনটিকে সংস্কার করে রূপান্তরিত করা হবে সংগ্রহশালায়। 

610

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এই নির্মাণকাজ নিয়ে বিরোধিতা করেছিল বিরোধীরা। কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী চিঠি লিখে মোদীকে আপাতত নির্মাণকাজ বন্ধ রাখার আর্জি জানিয়েছিলেন। কিন্তু, দেশের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে এই ভবন দেশবাসীকে উৎসর্গ করতে চেয়েছিলেন মোদী। তার জন্যওই করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই বিরোধীদের বিরোধিতা সত্ত্বেও এই ভবন নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। 

 

710

২০২২ সালের বাদল অধিবেশন নতুন সংসদ ভবনেই করার ইচ্ছা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। সেই কারণেই তড়িঘড়ি এই কাজ শুরু করা হয়েছে। টাটা প্রজেক্টস এই ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করেছে। ২০২০-র ১০ ডিসেম্বর নরেন্দ্র মোদী এই নতুন সংসদভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন।

 

810

এই নতুন সংসদভবনের লোকসভায় ৮৮৮টি আসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর রাজ্যসভায় থাকবে ৩৮৪টি আসন। এছাড়াও এই ভবনে সব সাংসদদের নিজস্ব কক্ষও থাকবে। সংসদের যৌথ অধিবেশনে যাতে কোনও সমস্যা না হয় তার দিকেও বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে।

910

বর্তমান সংসদভবনটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছিল ১৯২১ সালে। নির্মাণকাজ শেষ হয়েছিল ১৯২৭ সালে। বর্তমান সংসদভবনটি প্রায় ৯৪ বছরের পুরোনো। ব্রিটিশ আমলের পার্লামেন্টের তুলনায় নতুনটিতে অত্যাধুনিক ব্যবস্থা রাখা হবে বলেও জানান হয়েছে।

 

1010

কিছু সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে যে, উপরাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর নতুন বাসভবনকে নতুন সংসদভবনের সঙ্গে ভূগর্ভস্থ টানেলের মাধ্যমে যুক্ত করা হবে। অন্তত পক্ষে তিনটি টানেল থাকবে। ভিভিআইপিরা যাতে নিরাপদে চলাচল করতে পারেন তার জন্যই ওই টানেলের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।