অসুস্থ হয়েছে ছোট্ট ছানা, ঘাড় কামড়ে ধরে সোজা হাসপাতালে হাজির বিড়াল মা

First Published 2, May 2020, 4:18 PM

মানুষ হোক বা পশু। সবখানেই সন্তানের জন্য মায়ের ভালোবাসা অসীম। তেমনই এক ভালোবাসার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো এক বিড়াল। তুরস্কের ঐতিহাসিক নগরী ইস্তাম্বুলের ঘটনা। সেখানকার এক হাসপাতালে অসুস্থ ছানাকে নিয়ে হাজির মা বিড়াল। এই ঘটনার ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। 

<p>মনকে ছুঁয়ে যাওয়ার মত একটা সুন্দর ঘটনা ঘটেছে তুরস্কের ইন্তাম্বুলেরর একটি হাসপাতালে। &nbsp;পথের ধারের একটি মা বিড়াল তার অসুস্থ শিশুকে নিয়ে হাজির হয়েছে সেখানে।<br />
&nbsp;</p>

মনকে ছুঁয়ে যাওয়ার মত একটা সুন্দর ঘটনা ঘটেছে তুরস্কের ইন্তাম্বুলেরর একটি হাসপাতালে।  পথের ধারের একটি মা বিড়াল তার অসুস্থ শিশুকে নিয়ে হাজির হয়েছে সেখানে।
 

<p>ভাগ্য ভালো যে, বিড়ালটি একেবারে সঠিক জায়গাতেই তার সন্তানকে নিয়ে হাজির হয়েছে। ঠিক হাসপাতালটির ডাক্তার নার্সদের কাছেই বিড়ালটি তার শিশুকে মুখে করে নিয়ে যায়।</p>

ভাগ্য ভালো যে, বিড়ালটি একেবারে সঠিক জায়গাতেই তার সন্তানকে নিয়ে হাজির হয়েছে। ঠিক হাসপাতালটির ডাক্তার নার্সদের কাছেই বিড়ালটি তার শিশুকে মুখে করে নিয়ে যায়।

<p>ডাক্তাররাও হতাশ করেননি। চরম পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছেন। ছোট্ট কটন বলের মত সুন্দর আর নরম বিড়ালছানাটিকে তারা তুলে নিয়েছেন কোলে। পরীক্ষা করে দেখেছেন, বিড়ালটির বিশেষ কোন সমস্যা আছে কিনা। সঙ্গে তাদেরকে কিছু দুধ আর খাবার দিয়ে আপ্যায়নও করা হয়। &nbsp;এসব পেয়ে তারাও একটু শান্ত হয়।</p>

ডাক্তাররাও হতাশ করেননি। চরম পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছেন। ছোট্ট কটন বলের মত সুন্দর আর নরম বিড়ালছানাটিকে তারা তুলে নিয়েছেন কোলে। পরীক্ষা করে দেখেছেন, বিড়ালটির বিশেষ কোন সমস্যা আছে কিনা। সঙ্গে তাদেরকে কিছু দুধ আর খাবার দিয়ে আপ্যায়নও করা হয়।  এসব পেয়ে তারাও একটু শান্ত হয়।

<p>মা ও ছানা উভয়েরই স্বাস্থ্য ঠিক আছে বলে জানা গেলেও পরে তাদের পশু চিকিৎসকের কাছেও পাঠায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।&nbsp;</p>

মা ও ছানা উভয়েরই স্বাস্থ্য ঠিক আছে বলে জানা গেলেও পরে তাদের পশু চিকিৎসকের কাছেও পাঠায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

<p>এই ঘটনায় হতবাক হন হাসপাতালের স্টাফসহ স্থানীয়রা। এর পর ছবিটা যারাই দেখেছেন তারা বিস্ময়বোধ করেছেন। তারা বলছেন, বিড়ালটির এমন কাজই প্রমাণ করে মায়ের থেকে এই দুনিয়ায় স্নেহপ্রবণ আর কেউ হতে পারে না। যখন সে সন্তানের বিপদ দেখে, তখন দুনিয়ার সব কিছু ভুলে সে সন্তানের জীবন রক্ষায় সর্বশক্তি দিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করে যায়।<br />
&nbsp;</p>

এই ঘটনায় হতবাক হন হাসপাতালের স্টাফসহ স্থানীয়রা। এর পর ছবিটা যারাই দেখেছেন তারা বিস্ময়বোধ করেছেন। তারা বলছেন, বিড়ালটির এমন কাজই প্রমাণ করে মায়ের থেকে এই দুনিয়ায় স্নেহপ্রবণ আর কেউ হতে পারে না। যখন সে সন্তানের বিপদ দেখে, তখন দুনিয়ার সব কিছু ভুলে সে সন্তানের জীবন রক্ষায় সর্বশক্তি দিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করে যায়।
 

<p>হাসপাতালে চেকআপ করাতে যাওয়া তুর্কি নাগরিক মার্ভে ইজকান প্রথম বিড়ালটির ছবি তুলে ট্যুইটারে শেয়ার করেন।</p>

হাসপাতালে চেকআপ করাতে যাওয়া তুর্কি নাগরিক মার্ভে ইজকান প্রথম বিড়ালটির ছবি তুলে ট্যুইটারে শেয়ার করেন।

<p>ট্যুইটে মার্ভে লেখেন, বিড়ালকে দেখলাম, তার ছানাকে ঘাড় কামড়ে ধরে হাসপাতালে নিয়ে আসতে। পরে চিকিৎসকরা ওই ছানার চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। যতক্ষণ চিকিৎসকরা ওই বিড়াল ছানার চিকিৎসা দিচ্ছিলেন ততক্ষণ তাদের দিকে নিবিড়ভাবে লক্ষ রাখছিল মা বিড়ালটি।</p>

ট্যুইটে মার্ভে লেখেন, বিড়ালকে দেখলাম, তার ছানাকে ঘাড় কামড়ে ধরে হাসপাতালে নিয়ে আসতে। পরে চিকিৎসকরা ওই ছানার চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। যতক্ষণ চিকিৎসকরা ওই বিড়াল ছানার চিকিৎসা দিচ্ছিলেন ততক্ষণ তাদের দিকে নিবিড়ভাবে লক্ষ রাখছিল মা বিড়ালটি।

loader