বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুসলিম দেশের টাকায় থাকে গণপতির ছবি, কেন জানেন

First Published 22, Aug 2020, 1:57 PM

ভারতীয় সংস্কৃতি এবং ইতিহাস কেবল ভারতে নয় সারা বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত। বিশেষ করে পূর্ব এশিয়ার দেশ ইন্দোনেশিয়াতে তো প্রাচীন হিন্দু ধর্মের প্রভাব সর্বত্র দেখা যায়। এই দেশের মুদ্রার নাম রুপাইয়া। বিস্ময়কর হলেও এই মুসলিম দেশের একটি নোটে ভগবান গণেশ-এর ছবি দেখা যায়।

 

<p>২০১০ সালের জনগণনা অনুযায়ী ইন্দোনেশিয়ার জনসংখ্যার ৮৭.২ শতাংশই মুসলমান। ইসলামই ইন্দোনেশিয়ার বৃহত্তম ধর্ম। সব মিলিয়ে প্রায় ২২ কোটি ৫০ লক্ষ মুসলিম জনসংখ্যার নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশ।</p>

<p>&nbsp;</p>

২০১০ সালের জনগণনা অনুযায়ী ইন্দোনেশিয়ার জনসংখ্যার ৮৭.২ শতাংশই মুসলমান। ইসলামই ইন্দোনেশিয়ার বৃহত্তম ধর্ম। সব মিলিয়ে প্রায় ২২ কোটি ৫০ লক্ষ মুসলিম জনসংখ্যার নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশ।

 

<p>অথচ ইন্দোনেশিয়ার ২০ হাজার টাকার নোটের উপর দেখা যার ভগবান গনেশের ছবি।</p>

<p>&nbsp;</p>

অথচ ইন্দোনেশিয়ার ২০ হাজার টাকার নোটের উপর দেখা যার ভগবান গনেশের ছবি।

 

<p>আসলে গণেশ ভারতে সম্বৃদ্ধির দেবতা হিসাবে সম্বৃদ্ধ হলেও, ইন্দোনেশিয়ায় হিন্দু বিশ্বাস অনুযায়ী তিনি শিক্ষা, শিল্প ও দর্শনের দেবতা। ২০ হাজার টাকার নোটটি শিক্ষার উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করা। এর পিছনের অংশে শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা-সহ একটি ক্লাসঘরের ছবি রয়েছে।</p>

আসলে গণেশ ভারতে সম্বৃদ্ধির দেবতা হিসাবে সম্বৃদ্ধ হলেও, ইন্দোনেশিয়ায় হিন্দু বিশ্বাস অনুযায়ী তিনি শিক্ষা, শিল্প ও দর্শনের দেবতা। ২০ হাজার টাকার নোটটি শিক্ষার উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করা। এর পিছনের অংশে শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা-সহ একটি ক্লাসঘরের ছবি রয়েছে।

<p>এছাড়াও নোটটিতে ইন্দোনেশিয়ার প্রথম শিক্ষামন্ত্রী কি হাজর দেবন্তর-এর ছবিও রয়েছে। এই দেবন্তর ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতার অন্যতম নায়কও বটে।</p>

<p>&nbsp;</p>

এছাড়াও নোটটিতে ইন্দোনেশিয়ার প্রথম শিক্ষামন্ত্রী কি হাজর দেবন্তর-এর ছবিও রয়েছে। এই দেবন্তর ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতার অন্যতম নায়কও বটে।

 

<p>কয়েক বছর আগে ইন্দোনেশিয়ার অর্থনীতিতে চরম মন্দা এসেছিল। তারপরে তারা ২০ হাজার টাকার এই নোটটি প্রকাশ করেছিল। যার উপরে গণেশের ছবি ছাপা হয়েছিল। হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে লোকেদের বিশ্বাস, গণপতির কারণেই সেখানকার অর্থনীতি ফের শক্তিশালী হয়েছে।</p>

কয়েক বছর আগে ইন্দোনেশিয়ার অর্থনীতিতে চরম মন্দা এসেছিল। তারপরে তারা ২০ হাজার টাকার এই নোটটি প্রকাশ করেছিল। যার উপরে গণেশের ছবি ছাপা হয়েছিল। হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে লোকেদের বিশ্বাস, গণপতির কারণেই সেখানকার অর্থনীতি ফের শক্তিশালী হয়েছে।

<p>মুসলিম দেশ হলেও হিন্দু ধর্মের অনেক দেবদেবীকেই ইন্দোনেশিয়ার বিভিন্ন সরকারি ক্ষেত্রে স্থান দেওয়া হয়েছে। হিন্দদু পুরাণে বর্ণিত পবিত্র পাখি গরুড়-এর নামেই ইন্দোনেশিয়ার সরকারি বিমান সংস্থা গরুড় এয়ারলাইন্স-এর র নামকরণ করা হয়েছে।</p>

মুসলিম দেশ হলেও হিন্দু ধর্মের অনেক দেবদেবীকেই ইন্দোনেশিয়ার বিভিন্ন সরকারি ক্ষেত্রে স্থান দেওয়া হয়েছে। হিন্দদু পুরাণে বর্ণিত পবিত্র পাখি গরুড়-এর নামেই ইন্দোনেশিয়ার সরকারি বিমান সংস্থা গরুড় এয়ারলাইন্স-এর র নামকরণ করা হয়েছে।

<p>ইন্দোনেশিয়ার মিলিটারি গোয়েন্দা সংস্থার সরকারি ম্যাস্কট হল হনুমান। সেই দেশে অবশ্য হনুমান পবনপুত্র নন, বরং ভগবান শিবের পুত্র হিসাবে পরিচিত।</p>

<p>&nbsp;</p>

ইন্দোনেশিয়ার মিলিটারি গোয়েন্দা সংস্থার সরকারি ম্যাস্কট হল হনুমান। সেই দেশে অবশ্য হনুমান পবনপুত্র নন, বরং ভগবান শিবের পুত্র হিসাবে পরিচিত।

 

<p>গোটা ইন্দোনেশিয়া জুড়ে বহু হিন্দু মন্দিরও রয়েছে। ২০১০ সালের আদমশুমারি অনুসারে, সেখানে ৮০ লক্ষ হিন্দু বসবাস করেন। ইন্দোনেশিয়ানদের মোট জনসংখ্যার যা ১.৭ শতাংশ। তবে ইন্দোনেশিয়ার হিন্দু ধর্ম পরিষদ-এর মতে এই সংখ্যাটা প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ।</p>

গোটা ইন্দোনেশিয়া জুড়ে বহু হিন্দু মন্দিরও রয়েছে। ২০১০ সালের আদমশুমারি অনুসারে, সেখানে ৮০ লক্ষ হিন্দু বসবাস করেন। ইন্দোনেশিয়ানদের মোট জনসংখ্যার যা ১.৭ শতাংশ। তবে ইন্দোনেশিয়ার হিন্দু ধর্ম পরিষদ-এর মতে এই সংখ্যাটা প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ।

<p>ইন্দোনেশিয়ার শাসকরা একসময় হিন্দু রাজা ছিলেন। তারপর এখানে ইউসলাম ধর্মের প্রভাব বাড়ে। কিন্তু, কোনও ধর্মই অন্য ধর্মের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়নি। সব ধর্মের মানুষ তাঁদের উৎসব অনুষ্ঠান পালন করেন। একে অন্যের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশও নেন। আবার কিছু কিছু উৎসব বিভিন্ন ধর্মের সমন্বয়েই গড়ে উঠেছে। সব মিলিয়ে ইন্দোনেশিয়াকে বিশ্বের সবচেয়ে ধর্মীয় সহিষ্ণুতার দেশ বলা হয়।&nbsp;</p>

ইন্দোনেশিয়ার শাসকরা একসময় হিন্দু রাজা ছিলেন। তারপর এখানে ইউসলাম ধর্মের প্রভাব বাড়ে। কিন্তু, কোনও ধর্মই অন্য ধর্মের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়নি। সব ধর্মের মানুষ তাঁদের উৎসব অনুষ্ঠান পালন করেন। একে অন্যের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশও নেন। আবার কিছু কিছু উৎসব বিভিন্ন ধর্মের সমন্বয়েই গড়ে উঠেছে। সব মিলিয়ে ইন্দোনেশিয়াকে বিশ্বের সবচেয়ে ধর্মীয় সহিষ্ণুতার দেশ বলা হয়। 

loader