কেন চিনের ৫৯টি অ্য়াপ নিষিদ্ধ করল কেন্দ্রীয় সরকার, জেনে নিন বিস্তারিত

First Published 30, Jun 2020, 8:47 AM

ভারত-চীন উত্তেজনার মাঝে কেন্দ্রীয় সরকার নিল একটি বড় সিদ্ধান্ত। চীনের ৫৯ টি অ্যাপ নিষিদ্ধ হল ভারতে। যে অ্যাপগুলি নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাতে হ'ল বিখ্যাত টিকটক অ্যাপ্লিকেশন। এর বাইরে ইউসি ব্রাউজার, ক্যাম স্ক্যানারের মতো অনেক জনপ্রিয় অ্যাপও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলির কয়েক মিলিয়ন বা বিলিয়ন ব্যবহারকারী ছিল। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি মানুষের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় ছিল। তবে কেন বন্ধ করা হল এই অ্যাপগুলি।

<p>বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সরকার তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৬৯এ ধারার ক্ষমতার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। বিধি ২০০৯ প্রাসঙ্গিক আইন অনুযায়ী এই অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে রয়েছে গোপনে তথ্য চুরির অভিযোগ। </p>

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সরকার তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৬৯এ ধারার ক্ষমতার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। বিধি ২০০৯ প্রাসঙ্গিক আইন অনুযায়ী এই অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে রয়েছে গোপনে তথ্য চুরির অভিযোগ। 

<p>এটি চীনের ডিজিটাল মার্কেটে নিসন্দেহে একটি বড় ধাক্কা। চিনের এই সংস্থাগুলির ব্যবসা ভারতে বন্ধ হওয়ায় কয়েক মিলিয়ন ডলার আয় কমতে চলেছে। এই অ্যাপসের বিরুদ্ধে ভারতের অ্যাপলিকেশনগুলি বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা হবে যা দেশকেও আরও অনেক এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে।</p>

এটি চীনের ডিজিটাল মার্কেটে নিসন্দেহে একটি বড় ধাক্কা। চিনের এই সংস্থাগুলির ব্যবসা ভারতে বন্ধ হওয়ায় কয়েক মিলিয়ন ডলার আয় কমতে চলেছে। এই অ্যাপসের বিরুদ্ধে ভারতের অ্যাপলিকেশনগুলি বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা হবে যা দেশকেও আরও অনেক এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে।

<p>এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "আমাদের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে এই অ্যাপস এমন কিছু ক্রিয়াকলাপের সঙ্গে জড়িত যা ভারতের প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা, সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতার জন্য ক্ষতিকারক"। </p>

এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "আমাদের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে এই অ্যাপস এমন কিছু ক্রিয়াকলাপের সঙ্গে জড়িত যা ভারতের প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা, সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতার জন্য ক্ষতিকারক"। 

<p>কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে যে এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি মোবাইল এবং নন-মোবাইল ভিত্তিক ইন্টারনেট ডিভাইসে ব্যবহৃত হবে না।</p>

কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে যে এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি মোবাইল এবং নন-মোবাইল ভিত্তিক ইন্টারনেট ডিভাইসে ব্যবহৃত হবে না।

<p>এর মধ্যে ভারতে সবচেয়ে জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ টিকটক কেবল ভারতে নয় বিশ্বের প্রায় ১৫০ টি দেশে ৩৯ টি ভাষায় উপলদ্ধ। এর বিশ্বব্যাপী প্রায় ৪০০ মিলিয়ন সক্রিয় ব্যবহারকারী রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ৪১ শতাংশ ব্যবহারকারী বয়স ১৬ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে।<br />
 </p>

এর মধ্যে ভারতে সবচেয়ে জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ টিকটক কেবল ভারতে নয় বিশ্বের প্রায় ১৫০ টি দেশে ৩৯ টি ভাষায় উপলদ্ধ। এর বিশ্বব্যাপী প্রায় ৪০০ মিলিয়ন সক্রিয় ব্যবহারকারী রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ৪১ শতাংশ ব্যবহারকারী বয়স ১৬ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে।
 

<p>চিনা সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থাকা বা চিনা ডেভেলপারের অ্যাপগুলি দেশের একাধিক মোবাইল অ্যাপ থেকে গ্রাহকের স্মার্টফোনে স্পাইওয়্যার বা অন্য কোনও ম্যালওয়্যারের মাধ্যমে গোপনে গ্রাহকের তথ্য ও ছবি চুরি করা হচ্ছে।</p>

চিনা সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থাকা বা চিনা ডেভেলপারের অ্যাপগুলি দেশের একাধিক মোবাইল অ্যাপ থেকে গ্রাহকের স্মার্টফোনে স্পাইওয়্যার বা অন্য কোনও ম্যালওয়্যারের মাধ্যমে গোপনে গ্রাহকের তথ্য ও ছবি চুরি করা হচ্ছে।

<p>বিশেষজ্ঞদের দাবি, সীমান্তে সমস্যার পাশাপাশি দেশে অসংখ্য মোবাইল গ্রাহকের হ্যান্ডসেট দিয়ে বড় ধরনের সন্ত্রাস চালাতে পারেন চিনা কর্তৃপক্ষ। তাই সেই সম্পর্কে দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে।</p>

বিশেষজ্ঞদের দাবি, সীমান্তে সমস্যার পাশাপাশি দেশে অসংখ্য মোবাইল গ্রাহকের হ্যান্ডসেট দিয়ে বড় ধরনের সন্ত্রাস চালাতে পারেন চিনা কর্তৃপক্ষ। তাই সেই সম্পর্কে দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে।

<p>কেন্দ্রীয় সরকারের এই বড় সিদ্ধান্তের পরে, তালিকায় থাকা জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন টিকটককে গুগল প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। শুধু এটিই নয়, এটি অ্যাপল প্লে স্টোর থেকেও মুছে ফেলা হয়েছে বলে প্রকাশিত হয়েছে।</p>

কেন্দ্রীয় সরকারের এই বড় সিদ্ধান্তের পরে, তালিকায় থাকা জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন টিকটককে গুগল প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। শুধু এটিই নয়, এটি অ্যাপল প্লে স্টোর থেকেও মুছে ফেলা হয়েছে বলে প্রকাশিত হয়েছে।

<p>কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমাদের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে এই অ্যাপস এমন কিছু ক্রিয়াকলাপের সঙ্গে জড়িত যা ভারতের প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা, সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতার জন্য ক্ষতিকারক। এই অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীর গোপনে তথ্য ও ছবি চুরির অভিযোগ রয়েছে। তাই ভারতীয় সাইবার স্পেসের সুরক্ষা এবং সার্বভৌমত্ব নিশ্চিত করার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে- ভারতীয় সরকার</p>

কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমাদের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে এই অ্যাপস এমন কিছু ক্রিয়াকলাপের সঙ্গে জড়িত যা ভারতের প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা, সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতার জন্য ক্ষতিকারক। এই অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীর গোপনে তথ্য ও ছবি চুরির অভিযোগ রয়েছে। তাই ভারতীয় সাইবার স্পেসের সুরক্ষা এবং সার্বভৌমত্ব নিশ্চিত করার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে- ভারতীয় সরকার

loader