এই ওষুধ খেলেই বেড়ে যাবে আয়ু, মার্কিন মুলুকে পরীক্ষায় মিলতে শুরু করেছে সাফল্য

First Published 14, Jul 2020, 8:51 PM

দীর্ঘায়ু পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা প্রায় সব মানুষেরই রয়েছে। বিজ্ঞানীরাও তাই যুগ যুগ ধরে এই নিয়ে গবেষণা করে চলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের একদল বিজ্ঞানী দাবি করেছেন, মানুষের আয়ু বাড়ানোর পথ তাঁরা সম্ভবত খুঁজে পেয়েছেন। এমন এক ওষুধ তাঁরা আবিষ্কার করেছেন, যা সেবন করলে বাড়তে পারে মানুষের আয়ু। 
 

<p><strong>মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সায়েন্স ডেইলি জার্নাল অব জেরোনটলোজি সম্প্রতি একটি গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে। এই গবেষণাটি করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ইউএসসি ডর্নসিফ কলেজ অব লেটারস, আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের একদল গবেষক। যেখান দাবি করা হয়েছে, এমন একটি ওষুধ তারা তৈরি করেছেন, যা সেবন করলে বাড়তে পারে মানুষের আয়ু।</strong></p>

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সায়েন্স ডেইলি জার্নাল অব জেরোনটলোজি সম্প্রতি একটি গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে। এই গবেষণাটি করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ইউএসসি ডর্নসিফ কলেজ অব লেটারস, আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের একদল গবেষক। যেখান দাবি করা হয়েছে, এমন একটি ওষুধ তারা তৈরি করেছেন, যা সেবন করলে বাড়তে পারে মানুষের আয়ু।

<p><strong>ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, ল্যাবরেটরিতে দুটি ভিন্ন ভিন্ন প্রজাতির জীবের আয়ু বাড়াতে সক্ষম হয়েছে মিফপ্রিস্টন নামে নতুন উদ্ভাবিত একটি ওষুধ। </strong></p>

ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, ল্যাবরেটরিতে দুটি ভিন্ন ভিন্ন প্রজাতির জীবের আয়ু বাড়াতে সক্ষম হয়েছে মিফপ্রিস্টন নামে নতুন উদ্ভাবিত একটি ওষুধ। 

<p><strong>এই আবিষ্কার মানুষ ও অন্যান্য প্রজাতির প্রাণীর ক্ষেত্রে যুগান্তকারী সাফল্য আনতে পারে। এমনকি ক্যানসার  নিরাময়ের কাজেও এই ওষুধ ব্যবহার করা যায়।</strong></p>

এই আবিষ্কার মানুষ ও অন্যান্য প্রজাতির প্রাণীর ক্ষেত্রে যুগান্তকারী সাফল্য আনতে পারে। এমনকি ক্যানসার  নিরাময়ের কাজেও এই ওষুধ ব্যবহার করা যায়।

<p><strong>এই গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন ইউএসসি ডর্নসিফ কলেজ অব লেটারস, আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক জন টাওয়ার। তিনি ও তাঁর দল ড্রসোফিলা প্রজাতির নারী মাছি ও কেঁচো কৃমির ওপর ওষুধটি প্রয়োগ করেছেন।</strong></p>

এই গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন ইউএসসি ডর্নসিফ কলেজ অব লেটারস, আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক জন টাওয়ার। তিনি ও তাঁর দল ড্রসোফিলা প্রজাতির নারী মাছি ও কেঁচো কৃমির ওপর ওষুধটি প্রয়োগ করেছেন।

<p><strong>গবেষকরা  ল্যাবরেটরিতে  দেখেছেন, স্ত্রী ড্রসফিলা মাছিকে মিফপ্রিস্টন নামে ওষুধটি খাওয়ানোর পর প্রজননে অংশ নেওয়া স্ত্রী মাছির সেক্স পেপটাইড পদার্থটি নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। এর ফলে মাছি আরও স্বাস্থ্যবান হয়ে ওঠে এবং অপেক্ষাকৃত দীর্ঘদিন বেঁচে থাকে। যেসব কৃমির শরীরে ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়েছে, সেগুলোও অন্যগুলোর তুলনায় বেশি আয়ু পেয়েছে।</strong></p>

গবেষকরা  ল্যাবরেটরিতে  দেখেছেন, স্ত্রী ড্রসফিলা মাছিকে মিফপ্রিস্টন নামে ওষুধটি খাওয়ানোর পর প্রজননে অংশ নেওয়া স্ত্রী মাছির সেক্স পেপটাইড পদার্থটি নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। এর ফলে মাছি আরও স্বাস্থ্যবান হয়ে ওঠে এবং অপেক্ষাকৃত দীর্ঘদিন বেঁচে থাকে। যেসব কৃমির শরীরে ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়েছে, সেগুলোও অন্যগুলোর তুলনায় বেশি আয়ু পেয়েছে।

<p><br />
<strong>বিজ্ঞানীরা বলছেন, মিফপ্রিস্টন মাছির শরীরে যা করেছে, তার অনেকাংশ কাজই মানব শরীরে করে থাকে। এর দ্বারা প্রজনন শক্তি মানুষ হারায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। ফলে মানুষের আয়ুও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।</strong><br />
 </p>


বিজ্ঞানীরা বলছেন, মিফপ্রিস্টন মাছির শরীরে যা করেছে, তার অনেকাংশ কাজই মানব শরীরে করে থাকে। এর দ্বারা প্রজনন শক্তি মানুষ হারায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। ফলে মানুষের আয়ুও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।
 

<p><br />
<strong>টাওয়ার ও তার দল দেখেছেন, বহু প্রাণীর ওপরই একই রকমের প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে মিফপ্রিস্টন। ফলে এবার মানব শরীর নিয়ে আশা করতে শুরু করেছেন বিজ্ঞানীরা।</strong></p>


টাওয়ার ও তার দল দেখেছেন, বহু প্রাণীর ওপরই একই রকমের প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে মিফপ্রিস্টন। ফলে এবার মানব শরীর নিয়ে আশা করতে শুরু করেছেন বিজ্ঞানীরা।

loader