করোনা মহামারির জেরে লোকাল ট্রেন চলাচল বন্ধ রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ট্রেনে যাতায়াতে করোনা সংক্রমণ রুখতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছি। লাগাতার তিনমাস টানা লকডাউনের পর এবার আনলক পর্বে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন বাস পরিষেবা শুরু হলেও আন্ত রাজ্য ট্রেন পরিষেবা এখনও শুরু করেনি রেলমন্ত্রক। তবে, যাত্রী পরিষেবা আরও কিছুটা সচল রাখতে সম্প্রতি কেন্দ্র জানিয়েছে, রাজ্য সরকার চাইলে আন্তঃরাজ্য ট্রেন পরিষেবা চালু করতে পারে। আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ট্রেন চলাচলের সম্ভাবনা রয়েছে।

এই অবস্থায় প্রায় ছয় মাস ধরে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনগুলিতে রক্ষণাবেক্ষণের দিকে নজর দিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব রেল। দীর্ঘদিন অচল অবস্থায় থাকা ট্রেনগুলিকে চলার উপযোগী করতে দিনরাত এক করে কাজ করছেন রেলের কর্মীরা। যাত্রী নিরাপত্তায় পরীক্ষামূলক ভাবেও ট্রেন চালানো হচ্ছে। ইএমইউ ট্রেনের কোনও যন্ত্রাংশ খারাপ হয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখছেন রেলের কর্মীরা। কোনও ট্রেনের যন্ত্রাংশ বদল করা হচ্ছে। 

দক্ষিণ-পূর্ব রেলের হাওড়া টিকিয়াপাড়ায় কারশেডে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে স্য়ানিটাইজ করা হচ্ছে ট্রেনগুলি। স্য়ানিটাইজ করা হচ্ছে লোকাল ট্রেনের কামরা থেকে শুরু করে যাত্রীদের বসার জায়গাও। করোনা আবহের মধ্য়ে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু হলে তার জন্য যথারীতি সুরক্ষা বিধি মানা হবে বলে জানানো হয়েছে রেলমন্ত্রকের তরফে। তবে আপাতত লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালুর সম্ভাবনা থাকলেও  দূরপাল্লার ট্রেনের চলবে তা এখনও জানা যায়নি।