সন্দীপ মজুদার, হাওড়া: অভিভাবকদের বিক্ষোভের চেনা ছবিটা কি এবার বদলাবে? করোনা পরিস্থিতিতে আপাতত টিউশনি ফি মকুব করার সিদ্ধান্ত নিল হাওড়ার একটি নামী বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুল। মৌখিক আশ্বাস নয়, বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সেন্ট জোসেফ স্কুল কর্তৃপক্ষ। 

আরও পড়ুন: 'করোনা এক্সপ্রেস' ছিটকে দেবে মমতা-কে, নাকি 'গরু ছাগল'ই হবে বিজেপির কাল

করোনার সতর্কতায় লকডাউন আর নয়। সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ কমাতে এবার আনলক প্রক্রিয়া চলছে গোটা দেশজুড়েই। ব্যতিক্রম নয় এ রাজ্যও। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে রাস্তায় নেমেছে বাস, চলছে অটো-ট্যাক্সি-অ্যাপ ক্যাব। খুলে গিয়েছে সরকারি, এমনকী অনেকে সরকারি অফিসে। ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দ ফিরছে জনজীবনে। কিন্তু স্কুল-কলেজ কবে থেকে ক্লাস শুরু হবে? শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতিতে ৩০ জুন পঠনপাঠন বন্ধ থাকবে রাজ্যের সমস্ত সরকারি স্কুলে। বেসরকারি স্কুলগুলির আপাতত খোলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। 

আরও পড়ুন: ফের পরীক্ষাসূচি বদল উচ্চমাধ্যমিকের, পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানালেন নতুন তিনটি দিন

হাওড়ার শহরের নামী ইংরেজি মাধ্য়ম স্কুল সেন্ট জোসেফ। সালকিয়ার শ্রীমানি বাগান লেনে অবস্থিত এই স্কুলের পড়ুয়াদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়। লকডাউনের জেরে এখন গেটে তালা ঝুলছে। স্কুলের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে, এপ্রিল মাস থেকে যতদিন পর্যন্ত ফের পঠনপাঠন শুরু হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত কোনও পড়ুয়াকেই টিউশন ফি দিতে হবে না। শুধু  তাই নয়, বাৎসরিক অনুদান-সহ সমস্ত রকমের খরচই পঞ্চাশ শতাংশ মকুব করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। স্কুলের মানবিক সিদ্ধান্তে স্বস্তিতে অভিভাবকরা। কারণ, লকডাউনের কারণে অনেকের বেতনে কোপ পড়েছেন। অনেকেই আবার গত দু'মাস বেতন পাননি। ফলে স্কুলের ফি কীভাবে দেবেন, তা নিয়ে চিন্তায় ছিলেন সকলেই।