Asianet News BanglaAsianet News Bangla

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ১৫ আগস্ট পর্যন্ত বিনামূল্যে দেশের এই ঐতিহাসিক স্থানগুলি ঘুরে দেখতে পারেন

স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আসুন জেনে নিই ১৫ আগস্ট পর্যন্ত আপনি কোন জায়গাগুলি বিনামূল্যে ঘুরে দেখতে পারবেন।
 

Independence Day Special visit these historic places of the country for free till August 15 BDD
Author
First Published Aug 9, 2022, 2:45 PM IST

আপনি যদি ঐতিহাস স্থানে ঘুরতে ও তার সম্পর্কে আগ্রহী হন তবে আপনার জন্য সুখবর রয়েছে। আপনি ১৫ আগস্ট দেশের ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বিনামূল্যে দেশের ঐতিহাসিক স্মৃতিস্তম্ভগুলি ঘুরে দেখতে পারেন। স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আসুন জেনে নিই ১৫ আগস্ট পর্যন্ত আপনি কোন জায়গাগুলি বিনামূল্যে ঘুরে দেখতে পারবেন।

১) তাজমহল- তাজমহল বিশ্বের ৭টি আশ্চর্যের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত। আপনি বিনামূল্যে এই জায়গা অন্বেষণ করতে পারেন। এটি মুঘল সম্রাট শাহজাহান তার স্ত্রী মমতাজ মহলের স্মরণে নির্মাণ করেছিলেন। এটি সাদা মার্বেল দিয়ে তৈরি। তাজমহল বিশ্বের অপূর্ব সুন্দর স্মৃতিসৌধ ও মনোমুগ্ধকর নিদর্শন। ভালোবাসার অবিশ্বাস্য স্মরণীয় ভাস্কর্য। ইসলামিক স্থাপত্যের অপূর্ব নিদর্শন যা শান্তি ও সৌন্দর্যের প্রতীক। শাহজাহান, যিনি মুঘল আমলের সমৃদ্ধশালী সম্রাট ছিলেন। তিনি তাজমহল নির্মাণ করিয়েছিলেন১৬৩১ খ্রিষ্টাব্দে। তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী মুমতাজ-এর মৃত্যুতে প্রচণ্ডভাবে শোকাহত হয়ে পড়েন। মুমতাজ তখন তাদের চতুর্দশ কন্যা সন্তান গৌহর বেগমের জন্ম দিতে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেছিলেন।
তাজমহলের নির্মাণ কাজ মুমতাজের মৃত্যুর পর শুরু হয়। মূল সমাধিটি সম্পূর্ণ হয় ১৬৪৮ খ্রিস্টাব্দে এবং এর চারদিকের ইমারত এবং বাগান আরও পাঁচ বছর পরে তৈরি হয়।

Independence Day Special visit these historic places of the country for free till August 15 BDD


২) হুমায়ুনের সমাধি - এটি ভারতের সেরা সমাধিগুলির মধ্যে একটি। হুমায়ুনের সমাধিও দেখতে পারেন। আপনি এখানে মুঘলদের সুন্দর স্থাপত্য দেখে উপভোগ করতে পারবেন। এটি একটি অত্যন্ত আকর্ষণীয় পর্যটন স্থান।

হুমায়ুনের সমাধিসৌধ ১৫৬২ খ্রিষ্টাব্দে হুমায়ুনের পত্নী হামিদা বানু বেগম এই সমাধিটি নির্মাণ করান। এটির নকশা প্রস্তুত করেছিলেন পারসিক স্থপতি মিরাক মির্জা গিয়াস। হুমায়ুনের সমাধিই ভারতীয় উপমহাদেশের প্রথম উদ্যান-সমাধিক্ষেত্র। দিল্লির নিজামুদ্দিন পূর্ব অঞ্চলে হুমায়ুন ১৫৩৩ সালে যে দিনা-পানাহ বা পুরানা কিল্লা নির্মাণ করেছিলেন, তার সন্নিকটেই এই সমাধিসৌধটি অবস্থিত। লাল বেলেপাথরের এত বড় মাপের স্থাপনাগুলির মধ্যে হুমায়ুনের সমাধিসৌধই ভারতে প্রথম। ১৯৯৩ সালে এটি ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান ঘোষিত হয়। এরপর থেকেই এই সমাধিসৌধ চত্বরটিতে সংস্কারকাজ চলছে।

Independence Day Special visit these historic places of the country for free till August 15 BDD



৩) কুতুব মিনার - কুতুব মিনার দেখার জন্য খুব ভালো জায়গা। দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ তা দেখতে আসে। এটি অন্যতম সুন্দর পর্যটন স্থান। এছাড়াও আপনি ১৫ আগস্ট পর্যন্ত বিনামূল্যে কুতুব মিনার ঘুরে দেখতে পারেন।

কুতুব মিনার দিল্লিতে অবস্থিত একটি স্তম্ভ বা মিনার, যা বিশ্বের সর্বোচ্চ ইটনির্মিত মিনার। এটি কুতুব কমপ্লেক্সের মধ্যে অবস্থিত। ভারতের প্রথম মুসলমান শাসক কুতুবুদ্দিন আইবেকের আদেশে কুতুব মিনারের নির্মাণকাজ শুরু হয় ১১৯৩ খ্রিষ্টাব্দে, তবে মিনারের উপরের তলাগুলোর কাজ সম্পূর্ণ করেন ফিরোজ শাহ তুঘলক ১৩৮৬ খ্রিষ্টাব্দে। ভারতীয়-মুসলিম স্থাপত্যকীর্তির গুরুত্বপূর্ণ এবং অন্যতম প্রাচীন নিদর্শন হিসেবে কুতুব মিনার গুরত্বপূর্ণ। এর আশে-পাশে আরও বেশ কিছু প্রাচীন এবং মধ্যযুগীয় স্থাপনা এবং ধ্বংসাবশেষ রয়েছে, যা একত্রে কুতুব কমপ্লেক্স হিসেবে পরিচিত। এই কমপ্লেক্সটি ইউনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব ঐতিহ্য স্থান হিসেবে তালিকাবদ্ধ হয়েছে এবং এটি দিল্লির অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন-গন্তব্য। এটি ২০০৬ সালে সর্বোচ্চ পরিদর্শিত সৌধ, পর্যটকের সংখ্যা ছিল ৩৮.৯৫ লাখ যা তাজমহলের চেয়েও বেশি, যেখানে তাজমহলের পর্যটন সংখ্যা ছিল ২৫.৪ লাখ। প্রখ্যাত সুফি কুতুবউদ্দিন বখতিয়ার কাকীর নামানুসারে এর নামকরণ করা হয়।

Independence Day Special visit these historic places of the country for free till August 15 BDD



৪) লাল কেল্লা - দিল্লিতে অবস্থিত লাল কেল্লা সবচেয়ে বিখ্যাত মুঘল স্মৃতিস্তম্ভগুলির মধ্যে একটি। প্রতি বছর ১৫ আগস্ট দেশের প্রধানমন্ত্রী এখানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন। আপনি ১৫ আগস্ট পর্যন্ত এখানে বেড়াতে যেতে পারেন।

লালকেল্লা একটি অন্যমত ঐতিহাসিক দুর্গ। দিল্লিতে অবস্থিত এই কেল্লায় ভারত যে প্রধান রাষ্ট্রপতির বাসভবন হিসাবে ব্যবহৃত হয়। মোগল সম্রাট  শাহ জাহান ১৬৩৮ সালের ১২ মে তিনি লাল কেল্লার নির্মাণকাজ শুরু করেন, যখন তিনি তার রাজধানী স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নেন আগ্রা দিল্লিতে। মূলত লাল এবং সাদা, এর নকশাটি স্থপতিদের কাছে জমা দেওয়া হয় ওস্তাদ আহমদ লাহোরি, যারা নির্মিত তাজ মহল। এটি ১৬৩৯ মে থেকে ১৬৪৮ এপ্রিলের মধ্যে নির্মিত হয়েছিল। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী, জওহরলাল নেহরু, উত্থাপিত ভারতীয় জাতীয় পতাকা এখানেই উত্তোলন করা হয়েছিল। প্রতি বছর ভারতের স্বাধীনতা দিবসে ১৫ অগাষ্ট, প্রধানমন্ত্রী এই দুর্গের মূল ফটকে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং এর থেকে একটি জাতীর উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দেন।
 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios