ফের বাড়ি ফেরর পথে দুর্ঘটনার কবলে পরিযায়ী শ্রমিকরা। এবারের ঘটনা উত্তরপ্রদেশের আউরিয়া জেলায়। দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষের জেরে মৃত্যু হল কমপক্ষে ২৪ জন পরিযায়ী শ্রমিকের। ঘটনায় আহত হয়েছেন ২০ জনেরও বেশি পরিযায়ী শ্রমিক।

 

জানা যাচ্ছে রাজস্থান থেকে ট্রাকে করে আসছিলেন ওই পরিযায়ী শ্রমিকের দল। তাঁদের কারও বাড়ি উত্তরপ্রদেশ, কার বিহার কেউবা আবার পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা। কিন্তু তাঁদের মধ্যে অনেকেরই মাঝপথে থেমে গেল সফর। বাড়ি ফিরে আর দেখা হল না প্রিয় মানুষদের মুখ। ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ উত্তরপ্রদেশের আউরিয়া জেলার মিহৌলি জাতীয় সড়কের উপরে পরিযায়ী শ্রমিক বোঝাই ট্রাকটির সঙ্গে অপর এক  ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। তাতেই প্রাণ হারান  কমপক্ষে ২৪ জন শ্রমিক। 

 

আউরিয়ার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক অর্চনা শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, ২৪ জনকে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় নিয়ে আসা হয়েছিল। এছাড়াও ২২ জনকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে গুরুতর আহত ১৫ জনকে সেইফাই পিআইজি-তে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। শ্রমিকরা রাজস্থান থেকে বিহার ও ঝাড়খণ্ডে ফিরছিলেন। তবে আউরিয়ার জেলাশাসক অভিষেক সিং জানিয়েছেন, ট্রাকে পশ্চিমবঙ্গের শ্রমিকও ছিলেন।

 

 

দুর্ঘটনার প্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব (স্বরাষ্ট্র) আওয়ানিশ আওয়াস্তি বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ দুর্ভাগ্যজনক ঘটনার দিকে নজর রেখেছেন। মৃত শ্রমিকদের পরিবারের প্রতি তিনি সমবেদনা জানিয়েছেন। পাশাপাশি আহতদের দ্রুত সব রকমের চিকিৎসা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কমিশনার এবং আইজি কানপুর ঘটনাস্থলে যাবেন। দুর্ঘটনার কারণ নিয়ে দ্রুত রিপোর্ট জমা দেবেন।’

 

 

হঠাৎ করে দেশে লকডাউন ঘোষণা হওয়ার ফলে  নানা প্রান্তে আটকে পরেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা। দফায় দফায় লকডাউন বাড়ার ফলে বিরাট সমস্যায় পড়েন তাঁরা। রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পেটে টান পড়তে শুরু করে। এই পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের রাজ্যে ফিরিয়ে দিতে গত পয়লা মে থেকে ‘শ্রমিক স্পেশাল’ ট্রেন চালাচ্ছে কেন্দ্র। কিন্তু সেই ট্রেনও অপর্যাপ্ত। ফলে, বাধ্য হয়ে পায়ে হেঁটে  ফেরার পথকেই বেছে নিয়েছেন অনেকেই। কেউ কেউ ট্রাকের ব্যবস্থা করে তাতেই ফিরছেন। কিন্তু তাতেও একের পর এক বিপত্তি ঘটেই চলেছে।