প্রথমবারের জন্য ভারতে একদিনে নতুন করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্য়া বৃদ্ধির মাত্রা ৩০,০০০ ছাপিয়ে গেল। বুধবার সকালে শেষ ২৪ ঘণ্টায় ২৯,৪৯৯ জন নতুন কোভিড-১৯ রোগীর সন্ধান মিলেছে বলে জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক। যা ছিল একটা রেকর্ড। আর তার পরের ২৪ ঘন্টায় কোভিড রোগীর সংখ্যা বাড়ল ৩২,৬৯৫ জন। সব মিলিয়ে এদিন ভারতের মোট করোনাভাইরাস মামলার সংখ্যা দাঁড়ালো ৯,৬৮,৮৭৬। গত ২৪ঘন্টায় করোনা জনিত কারণে ৬০৬ জনের মৃত্যুর ফলে মোট মৃতের সংখ্যা এখন ২৪৯১৫।

৯,৬৮,৮৭৬ জনের মধ্যে ৬,১২,৮১৪ জন ইতিমধ্য়ে সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। বর্তমানে সক্রিয় মামলার সংখ্যা ৩,৩১,১৪৬। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ২০,৭৮৩ জন। যার ফলে ভারতের সুস্থ হওয়ার হার আরেকটু বেড়ে ৬৩.২৫ শতাংশ হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের মতে, এখনও ভারতের কোভিডে সবচেয়ে রাজ্য মহারাষ্ট্র। এদিন সকাল পর্যন্ত মোট ২,৭৫,৬৪০ জন কোভিড আক্রান্ত এই রাজ্যে। আর মৃতের সংখ্যা ১০,৯২৮। এরপরই আছে তামিলনাড়ু। সেখানে কোভিড -১৯-এ আক্রান্ত মোট ১,৫১,৮২০ জন আর মৃত্যু হয়েছে ২১৬৭ জন। তিন নম্বরে আছে দিল্লি। সেখানকার মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১,১৯,৬৯৩ জন আর মৃত্য়ু হয়েছে ৩৪৮৭ জনের।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ বা আইসিএমআর-এর দেওয়া তথ্য অনুসারে, বুধবার ৩.২৪ লক্ষ করোনা পরীক্ষা হয়েছে দেশে। সব মিলিয়ে ১৫ জুলাই পর্যন্ত ভারতে মোট করোনাভাইরাসের পরীক্ষা হয়েছে ১.২৭ কোটি মানুষের।

মে মাসের শেষ জুন মাসের শুরুতেই বেশ কয়েকটি গবেষণায় পূর্বাভাষ দেওয়া হয়েছিল, জুলাই মাসের মাঝামাঝি ভারতে দৈনিক করোনা রোগী বৃদ্ধির সংখ্যা ৩০০০০ ছাড়িয়ে যাবেয এদিন ঠিক তাই ঘটল। তবে এটাই কি সংক্রমণের চুড়া? অর্থাৎ এরপর থেকে কি সংখ্যাটা কমতে থাকবে? কেউই নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।