আরও একবার দৈনিক রেকর্ড গড়ে গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে ৪০০০০-এর বেশি মানুষ আক্রান্ত হলেন কোভিড-১৯'এ। আর তাতে করোনাভাইরাস মামলার সংখ্যায় বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় স্থানে থাকা ভারতের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা ১১ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল।

সোমবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রক যে তথ্য দিয়েছে, তা বলছে, গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে নতুন করোনা কেস-এর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে ৪০,৪২৫টি। বলাই বাহুল্য এর আগে কখনও দেশে একদিনে এত বেশি করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি ঘটেনি।

তবে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দাবি অনুযায়ী দৈনিক নতুন করোনভাইরাস মামলার সংখ্যা যেমন একদিকে বাড়ছে, তেমনই ভারতের কোভিড-১৯ মৃত্যুর হার ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। বর্তমানে ভারতে করোনা জনিত কারণে মৃত্যুর বার ২.৪৯ শতাংশ। বিশ্বের কোনও দেশে মৃত্যুর হার এত কম নয়।

সেইসঙ্গে ভারতে কোভিড আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে গিয়েছেন মোট ৭,০০,০৮৬ জন আর সক্রিয় মামলার সংখ্যা এখন ৩,৯০,৫৫৯ টি। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে ২২৬৬৪ জন কোভিড রোগীকে। ফলে এখন ভারতে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা, সক্রিয় মামলার থেকে ৩,০৯,৬২৭ গুলি বেশি।

কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন পয়েন্ট অফ কেয়ার বা পিওসি পরীক্ষা এবং আরটি-পিসিআর ভিত্তিক পরীক্ষার সংখ্যা আগের থেকে অনেকটাই বেড়েছে। আইসিএমআর জানিয়েছে ভারতে ১৯ তারিখ পর্যন্ত করোনভাইরাসের জন্য ১,৪০,৪৭,৯০৮ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শুদু মাত্র রবিবারেই নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে  আড়াই লক্ষেরও বেশি।

আশা দেখাচ্ছে ভ্যাকসিন তৈরির দৌড়ে থাকা বিভিন্ন ভারতীয় প্রার্থীরা। গত সপ্তাহে  ভারত বায়োটেক-এর ভ্যাকসিন প্রার্থী কোভাক্সিনের মানবদেহে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা জাইডাস ক্যাডিলা-ও গত সপ্তাহেই প্রথম মানব ডোজ নিয়ে তার সিভিড -১৯ ভ্যাকসিন প্রার্থীর ক্লিনিকাল ট্রায়াল শুরু করেছে। আর সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া জানিয়েছেন ২০২০ সালের আগস্টে ভারতে তাদের টিকার মানবদেহে পরীক্ষা শুরু হবে।