সোমবার শুরু হয়েছে আন্তর্দেশীয় উড়ান পরিষেবা। প্রথম দিনে বেশ কিছু বিভ্রাটের মধ্যেও পড়তে হয়েছে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সবকিছু উপেক্ষা করে চমকে দিল পাঁচ বছরের ভিহান শর্মা। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ, লকডাউন-- সবকিছু উপেক্ষা করে দীর্ঘ তিন মাস পরে সে পৌঁছে গেল  তাঁর মায়ের কাছে। 
 

রীতিমত তাক লাগিয়ে দিয়েছে ভিহান শর্মা। লকডাউনের আগেই দিল্লিতে দাদু দিদার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল ভিহান শর্মা। তাঁর মা থাকেন কর্নাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরুতে। কিন্তু আচমকাই লকডাউন ঘোষণা হয়ে যাওয়ায় মা ছেলের কাছে পৌঁছাতে পারেননি। আবার ছেলেও ফিরে যেতে পারেনি মায়ের কাছে। সোমবার আন্তর্দেশীয় উড়ান শুরু হওয়ার পরই দিল্লি থেকে বিশেষ বিভাগের যাত্রী হিসেবে তাকে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয় বেঙ্গালুরুতে। সেখানেই তাকে তার মা গ্রহণ করে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে।  গ্লাভস, মাক্স পরে রীতিমত করোনাভাইরাসের সংক্রমণকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়েই বিমানে চড়েছিল ভিহান। তার মা জানিয়েছেন, তাঁর পাঁচ বছরের ছেলে একাই সফর করল। প্রায় তিন মাস পরে সে ফিরল বেঙ্গালুরুতে। 

এদিন সকাল থেকেই শুরু হয়েছে আন্তর্দেশীয় বিমান পরিষেবা। বেঙ্গালুরুর কেম্পাগৌডা আন্তর্জাকিত বিমান বন্দরে সকাল ৯টা পর্যন্ত ৫টা বিমানে নেমেছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে লকডাউনের  কারণে গত ২ মাস ধরে বন্ধ ছিল অন্তর্দেশীয় উড়ান পরিষেবা। এদিন থেকেই শুরু হয়েছে উড়ান পরিষেবা।