একদিন আগেই সরকারি এক রিপোর্টে জানা গিয়েছে ভারতে অধিকাংশ ক্ষেত্রে নিকটাত্মীয়দের হাতেই ধর্ষণের শিকার হতে হয় মহিলাদের। এইরকম বিভিন্ন খবরে ক্রমেই যখন মনুষ্যতের প্রতি আস্থা হারিয়ে যাচ্ছে তখন ফের আশার আলো দেখান দক্ষিণমূর্তি কৃষ্ণকুমার-রা।

বছর চারেক আগে দক্ষিণমূর্তির বাবা মারা যান। কর্নাটকের মাইসোরের ৩৯ বছরের এই বাসিন্দা একটি ব্যাঙ্কের উচ্চপদে চাকরি করতেন। কিন্তু ২০১৮ সালে সেই নিরাপদ চাকরি ছেড়ে ছুড়ে মা-কে নিয়ে বেরিয়ে পড়েন ভারত ভ্রমনে। বাবার ২০ বছরের পুরোনো বাজাজ চেতক স্কুটারে করেই তিনি মা-কে ঘুরিয়ে দেখাচ্ছেন দেশ। ইতিমধ্যেই ৪৮০০০ কিলোমিটারেরও বেশি রাস্তা পারি দেওয়া হয়ে গিয়েছে।

দক্ষিণমূর্তি কৃষ্ণকুমার জানিয়েছেন এর আগে তাঁর মায়ের পক্ষে কোনওদিন বাড়ি চৌহদ্দির বাইরে যাওয়া সম্ভব হয়নি। সাংসারিক কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকতেন। বাবার মৃত্যুর পর তিনি আরও একা হয়ে পড়েছিলেন। দক্ষিণমূর্তি জানতে পারেন বাড়ির কাছের এক মন্দিরে পর্যন্ত যাওয়া হয়নি তাঁর মায়ের। তখনই তিনি ঠিক করেন, শুধু বাড়ির কাছের মন্দির কেন, মাকে গোটা ভারতটাই ঘুরিয়ে দেখাবেন।

সম্প্রতি ব্যবসায়ী আনন্দ কুমার মাহিন্দ্রার বন্ধু মনোজ কুমার সোশ্যাল মিডিয়ায় দক্ষিণমূর্তির কাহিনি জানিয়ে তাঁর ও তাঁর মায়ের এই অভিনব যাত্রার একটি ভিডিও শেয়ার করেন। আর তার থেকেই এখন ভাইরাল হয়েছে এই ভিডিও। দক্ষিণমূর্তির কথা জানতে পেরেই মাহিন্দ্রা মোটরস-এর মালিক আনন্দ মাহিন্দ্রা একটি মাহিন্দ্রা কেইউভি ১০০ এনএক্সটি গাড়ি উপহার দিতে চেয়েছেন তাঁকে। শেষ পর্যন্ত আনন্দ মাহিন্দ্রার সঙ্গে দক্ষিণমূর্তির যোগাযোগ হবে কিনা তা সময় বলবে। কিন্তু মায়ের প্রতি ভালবাসা থেকে তাঁর এই অভিনব উদ্যোগ যে অনেক অনেক ভারতবাসীকে অনুপ্রেরণা দেবে, তা বলাই বাহুল্য।