নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে দেশ জোড়া প্রতিবাদের মধ্যেই রাজস্থানের সিকার-এর এক পরিবার-এর থেকে এক অদ্ভূত উপায়ে সমর্থন পেল নাগরিকত্ব আইন ও মোদী সরকার। খান্ডেলওয়াল পরিবারের বড়ছেলের বিয়ের কার্ডে লেখা হল 'আমরা এনআরসি এবং সিএএ সমর্থন করি'। সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একটি ছবি এবং স্বচ্ছ ভারত অভিযানের লোগো।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মতোই মোহনলাল খান্ডেলওয়াল একজন চা বিক্রেতা। চায়ের দোকানের পাশাপাশি তিনি একটি আটাকলের মালিকও বটে। বড়ছেলের বিয়ের কার্ডে নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে স্লোগান ছাপিয়েই থামেননি তিনি, নবদম্পতিকে উপহার হিসাবে বিজেপি এবং নরেন্দ্র মোদীর পক্ষে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। মোহনলাল বলেছেন, 'বিভ্রান্তি সৃষ্টির পরিবর্তে, জনগণের উচিত মোদীজি এবং অমিত শাহজি দেশের জন্য যা করছেন তার প্রশংসা করা উচিৎ। আশা করি, আমাদের এই ছোট্ট কাজ অনেককে অনুপ্রাণিত করবে।

বাবার এই সিদ্ধান্তে সম্পূর্ণ মত রয়েছে পুত্র অমিত খান্ডেলওয়াল-এরও। ২৭ বছরের এই যুবক স্নাতকোত্তর পাস করে আপাতত সিকরে একটি ই-মিত্র কিয়স্ক চালান। তিনি বলেছেন, অজ্ঞানতার কারণেই লোকে সর্বত্র সিএএ এবং এনআরসির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে। তাদের এই প্রতিবাদ এক দারুণ কেবল সম্ভাবনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। তাঁদের পরিবার সিএএ এবং এনআরসি সমর্থন করে, তাই তাঁরা এই স্লোগান দিয়ে কার্ড ছাপার পরিকল্পনা করেছেন। এতে করে তাঁদের মতো আরও অনেক বেশি লোককে অনুপ্রাণিত হবে বলে মনে করছেন তিনি।

বিয়ে হবে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি তারিখে। বিয়েতে আমন্ত্রিতদের তালিকাতেও রয়েছে চমক। খান্ডেলওয়াল পরিবার প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকেও বিয়েতে আসার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছে। রেজিস্ট্রি পোস্টের মাধ্যমে কার্ড পাঠানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে। দুজনেই কার্ডগুলি পেয়েছেন, ডাক বিভাগগ থেকে সেই নিশ্চয়তাও দেওয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৭০০টি কার্ড বিতরণ করা হয়েছে।

সিএএ ২০১৯ আইন পাস হওয়ার পরপর অনেক নবদম্পতিকেই সিএএ বিরোধী পোস্টার হাতে ছবি তুলতে দেখা যাচ্ছিল। ক্রমে সিএএ সমর্থন করে স্লোগান দিয়ে বিয়ের কার্ড ছাপাটা নয়া ট্রেন্ড হয়ে উঠছে।