বাম ছাত্রদের দাবি নস্যাৎ করে পাল্টা তাঁদের সদস্যদের ওপর হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ করল এবিভিপি। সোশ্য়াল মিডিয়ায় এই দাবি করলেন জেএনইউ-এ এবিভিপির সভাপতি দুর্গেশ কুমার। 

জেএনইউ-তে বাম ছাত্রছাত্রীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে সরগরম সোশ্য়াল মিডিয়া। এইমস-এ আক্রান্ত ছাত্রদের দেখতে গিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি থেকে সীতারাম ইয়েচুরি সকলেই। বাম ছাত্রছাত্রীরা দাবি করেছে মুখ ঢেকে লাঠি, লোহার রড নিয়ে তাদের হস্টেলে হামলা চালিয়েছে অখিল ভারতীয় বিদ্য়ার্থী পরিষদের সদস্যরা। য়াতে ছাত্র ছাত্রীদের সহ্গে আহত হয়েছেন অধ্যাপকরাও। 

এবার বাম ছাত্রদের বিরুদ্ধেই হামলার অভিযোগ তুলল এবিভিপি। তাদের দাবি, রবিবার সন্ধেয় জেএনইউ-এর বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের পড়ুয়ারাই তাদের ওপর হামলা করে। যাতে তাদের ২৫ জন সদস্য গুরুতর ভাবে আহত। ১১ জন নিখোঁজ। এদের মধ্য়ে অনেকে দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে ভর্তি। জেএনইউ-এ এবিভিপির সভাপতি দুর্গেশ কুমার, এসএফআই, আইসা, ডিএসএফ-এর পড়ুয়ারা এবিভিপি-র পড়ুয়াদের ওপর হামলা করে। কমিউনিস্ট গুন্ডারা জেএনইউ-এর পড়ুয়াদের উপর এবং এবিভিপির উপর আক্রমণ চালিয়েছে। রাজনৈতিক স্বার্থসিদ্ধির জন্য ইউনিভার্সিটির ক্ষতি করেছে তারা। জওহরলাল নেহরু ইউনিবারসিটি এখন নকশালদের দখলে।

যদিও জেএনইউ ছাত্র সংসদের তরফে টুইট করে বলা হয়, এবিভিপির আক্রমণকারীরা মুখ ঢেকে হামলা করতে এসেছিল।  হামলাকারীদের হাতে লাঠি, রড ছিল। যাতে গুরুতর আক্রান্ত হয়েছেন  ছাত্র সংসদের সভাপতি ঐশী ঘোষ-সহ অনেকে। অনুমান করা হচ্ছে, ধারালো কোনও কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়েছে ঐশীর মাথায়। গুরুতর জখম অবস্থায় এইমসের ট্রমা কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে তাঁকে। একটি ভিডিয়োয় ঐশী জানান, মুখ ঢেকে গুন্ডারা তাঁর ওপর হামলা চালায়।