শুরু হল সপ্তদশ লোকসভা বাজেট অধিবেশন। এদিন লোকসভার কাজ শুরু হতেই স্পিকারকে স্বাগত জানানো হয়। এবার স্পিকার পদে নির্বাচিত হলেন ওম বিড়লা। তাঁর নাম প্রস্তাব করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। স্পিকার নির্বাচন হয়ে গেলে, সংসদ কক্ষে উপস্থিত দলনেতারা স্পিকারের উদ্দেশ্যে স্বাগতভাষণ দেন। এই ভাষণেই মন কেড়ে নন অধীর চৌধুরী। 

প্রসঙ্গত দশ বছর পরে লোকসভায় স্পিকার হলেন কোনও পুরুষ। এর আগে  লোকসভায় স্পিকার ছিলেন সুমিত্রা মহাজন। তার আগে এই দায়িত্বে ছিলেন সুমিত্রা মহাজন। এদিন নতুন স্পিকারকে বরণ করে নেওয়া সময় অধীর বলেন, প্রধানমন্ত্রী সংসদ কক্ষের বাইরে বলেছেন লোকসভায় কোনও শাসক বিরোধী থাকবে ন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে সবচেয়ে বেশি সদর্থক ভূমিকা নিতে হবে স্পিকারকেই। তাঁর নিরপেক্ষ ভূমিকাই লোকসভাকে সুন্দর ও সংহত করবে। তিনি এই কথা বলতে বলতেই হাততালির ঝড় ওঠে সংসদে।

ইতিমধ্যেই লোকসভায় বড় দায়িত্ব পেয়েছেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। কংগ্রেস লোকসভায় দলনেতা নির্বাচন করেছে তাঁকে। এইদিন তাঁর স্পষ্ট স্বাগতভাষণ আরও একবার বুঝিয়ে দিল, সংখ্যায় নগণ্য হলেও আগামী পাঁচ বছর ছেড়ে কথা বলবেন না অধীর চৌধুরী।

প্রসঙ্গত স্পিকার ওম বিড়লা রাজস্থানের কোটার দুই বারের সাংসদ। অতীতে তিনবার বিধায়কও নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। এদিন তাঁর নাম প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাব করতেই, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সমর্থন জানান।বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় স্পিকারের পদে আসীন হন ওম বিড়লা। আপাতত তাঁর সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ।