নিজামাবাদ-এর বিজেপি সাংসদ ডি অরবিন্দ এআইমিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি-কে ক্রেনে ঝুলিয়ে দাড়ি ছিঁড়ে নেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন। তার পরই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান কানের প্রবল সমালোচনা শোনা গেল ওয়াইসির মুখে। উত্তরপ্রদেশে মুসলিমদের উপর পুলিশ অত্যাচার করছে, বলে বাংলাদেশের একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন ইমরান। সেই নিয়েই পাক প্রধানমন্ত্রীর তীব্র ভর্ৎসনা করলেন ওয়াইসি।

ইমরানকে তিনি ভারতের মুসলিমদের নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে পাকিস্তান নিয়েই চিন্তা করার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি সাফ জানান, ভারতীয় মুসলিমরা জিন্নার ভুল তত্ত্ব অস্বীকার করেছে। তারা ভারতীয় হিসেবে গর্বিত। গত শুক্রবার ভারতের উত্তরপ্রদেশে পুলিশ ভারতীয় মুসলিমদের উপর অত্যাচার করছে বলে দাবি করে একটি সাত বছরের পুরোনো বিডিও পোস্ট করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ফাঁস হয়ে যায় ভিডিওটি বাংলাদেশের। এরপর সোশ্য়াল মিডিয়া থেকে শুরু করে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকও ইমরানের সমালোচনা করেছেন।

ওয়াইসি-ও সেই সুরেই সুর মেলালেন। তবে শুধু ইমরান নন, নরেন্দ্র মোদীকেও ছেড়ে কথা বলেননি এআইমিম প্রধান। তিনি একই সভা থেকে প্রধানমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করেছেন, তাঁর শাসনকালে এনআরসি হবে না, এই ঘোষণা করার জন্য। নাগরিকত্ব আইন ও প্রস্তাবিত এনআরসি-র বিরোধিতা করতে এআইমিম-এর সঙ্গে হাত মেলানোর জন্য তিনি কংগ্রেস-কে আহ্বান জানিয়েছেন। তাৎপর্যপূর্ণভাবে আরেক সিএএ-এনআরসি বিরোধী দল তৃণমূল কংগ্রেস-এর নাম তিনি এড়িয়েই গিয়েছেন।  

তবে ওয়াইসি-র ওই সভার আগেই তেলেঙ্গানার বিজেপি সাংসদ ধর্মপুরি অরবিন্দ, ওয়াইসি-কে চরম হুমকি দেন। এমআইমিম প্রধানকে তিনি বলেন, নয় বছর আগে হায়দরাবাদের ওল্ড সিটি এলাকায় তাঁর ছোট ভাই আকবরউদ্দিন ওয়াইসিকে ছুরিকাহত হয়েছিলেন। বিজেপি-কে উৎখাত করতে চাইলে উল্টে করে ক্রেনে ঝুলিয়ে তাঁর দাড়ি ছিঁড়ে নেওয়ার হুমকি দেন অরবিন্দ।