আরও বড় বিপদের সামনে রিবাপ্লিক টিভির এডিটর ইন চিফ অর্ণব গোস্বামী। পালঘর গণপ্রহার ইস্যু ও বান্দ্রাতে অভিবাসী শ্রমিক ইস্যুতে রিবাপ্লিক টিভির কভারেজ নিয়ে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। মুম্বই পুলিশের অভিযোগ, এই দুটি বিষয় অত্যন্ত স্পর্ষকারত। আর এই বিষয়গুলির করারেভে অর্ণব গোস্বামী সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছিলেন বলেও অভিযোগ করা হয়েছে। এক পুলিশ কর্তা জানিয়েছেন সিআরপিসি অ্যাক্টের ১০৮ নম্বর ধারায় নোটিশ পাঠান হয়েছে অর্ণব গোস্বামীকে। শুক্রবার বিকেল ৪টের মধ্যে স্পেশাল এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও ওরলি বিভাগের অ্যাসিস্টেন্ট পুলিশ কমিশনের দফতরে হাজিরা হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

গত ২১ এপ্রিল পালঘর ইস্যুতে রিপাব্লিক টিভিতে 'পুছতাা হ্যায় ভারত' নামের একটি অলোচনার অনুষ্ঠানে সাম্প্রদায়িক মন্তব্য করেছিলেন বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে। এই অনুষ্ঠানে মহারাষ্ট্রের পালঘরে দুই সন্ন্যাসী ও তাঁদের গাড়ির চালকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ নিয়েই আলোচনা হচ্ছিল। সেই অনুষ্ঠানে অর্ণব গোস্বামী বলেন, হিন্দু হওয়া আর গেরুয়া বসন পরা কী অপরাধ। তিনি আরও বলেন হিন্দু না হলে কী সবাই এই ঘটনা নিয়ে চুপ থাকতে পারতেন। এই অনুষ্ঠানের পরই অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির দাঙ্গায় উস্কানি দেওয়াসহ একাধিক ধারায় মামলা দায়ের হয়।  লকডাউনের প্রথম দিকে যখন যানবাহন পুরোপুরি বন্ধ ছিল তখন বান্দ্রা রেল স্টেশনের সামনে  আচমকাই অভিবাসী শ্রমিকদের জমায়েত হয়। সেই বিষয় কভারেজের সময়ও উস্কানিমূলক মন্তব্য করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। সেই বিষয়েও কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠান হয়েছে অর্ণব গোস্বামীকে। 

বর্তমানে কিছুটা হলেও সমস্যায় পড়েছেন রিপাব্লিক টিভির এডিটর ইন চিফ। কারণ সুশান্ত সিং রাজপুত ইস্যুতে অর্ণব প্রথম থেকেই সরব ছিলেন। তিনি বলিউডের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। একই সঙ্গে বলিউডের তিন সুপারস্টার  আমির, শাহরুখ, সলমন আর প্রথম সারির বেশ কয়েকটি প্রোডাকশন হাউসও তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে। টিআরপি কাণ্ডেও নাম জড়িয়ে অর্ণব গোস্বামীর।