বর্তমান সমাজে আমরা বড়ই স্বার্থপর হয়ে উঠছি। একে অপরের পাশে দাঁড়ানো বা সাহায্যের হাত বাড়িতে দেওয়ার ঘটনা আর তেমন দেখা যায় না। এই আত্মকেন্দ্রীক যুগে নজির গড়লেন গুজরাতের এক মহিলা। নিজের বুকের দুধ দিয়ে বাঁচিয়ে তুললেন ৫টি প্রিম্যাচিওর শিশুর জীবন।

দেখুন ভিডিও: অবসরের আগে শেষবারের মত আকাশে কেরামতি দেখাল কার্গিল যুদ্ধের নায়ক মিগ-২৭, দেখুন সেই ভিডিও

চলতি বছর সেপ্টেম্বরেই মা হয়েছেন রুশিনা মারফাটিয়া। ২০ সেপ্টেম্বর জন্ম দিয়েছেন এক ফুটফুটে পুত্র সন্তান বিহানের। তবে নিজের সন্তানের পাশাপাশি  সমাজের অন্যান্য সদ্যোজাত শিশুদের কথা ভেবে বুকের দুধ দান করার সিদ্ধান্ত নেন রুশিনা। নিজের এই ইচ্ছার কথা বাবাকে জানান তিনি। এরপরেই আহমেদাবাদের অর্পণ মম ব্যাঙ্কের সঙ্গে যোগাযোগ করেন রুশিনা। ২৯ বছরের তরুণী দান করেন নিজের বুকের ১২ লিটার দুধ।

 

 

সদ্যোজাতদের কাছে মায়ের দুধ খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু অনেক শিশুই তা থেকে বঞ্চিত হয়। মায়ের দুধ না পেলে প্রাণ সংশয়ের সম্ভাবনাও থাকে সদ্যোজাতদের। এমনই  আইসিইউ-তে থাকা পাঁচটি শিশু রুবিনার দুধ খেয়ে নতুন জীবন পেয়েছে।

দেখুন ভিডিও: "পাগল মুখ্যমন্ত্রীকে সঙ্গ দিচ্ছেন না দলের নেতারাই", ফের মমতাকে কটাক্ষ দিলীপের

বর্তমানে একটি প্রাইভেট কলেজে পড়ান রুশিদা। ৫টি সদ্যোজাতর মা শারীরিক কারণে বুকের দুধ খাওয়াতে ব্যর্থ জানার পরই এগিয়ে আসেন তিনি। রুশিদা ছাড়াও অর্পণ মম ব্যাঙ্কের জন্য ২৫০ জন সদ্য মা নিজেদের বুকের দুধ দান করেছেন। প্রায় ৯০ লিটার বুকের দুধ দান করা হয়েছে আহমেদাবাদের এই মম ব্যাঙ্কে। যা খেয়ে নতুন জীবন পেয়েছে  ৬০০ জন শিশু।