পূর্ব লাদাখের ভারত চিন সীমান্তে দুই পক্ষের সেনাবাহিনীর স্ট্যান্ডঅফের মধ্য়েই বৃহস্পতিবার ফের একবার আকসাই চিন-এর দাবি তুললেন লাদাখের বিজেপি সাংসদ জামিয়াং সেরিং নামগিয়াল। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে তিনি বলেন,  'এটি একটি ভারতীয় অঞ্চল এবং এখন চিনা দখল থেকে এই জায়গা ফিরিয়ে আনার সময় এসেছে'।

নামগিয়াল অবশ্য শুধু আকসাই চিনই নন, গিলগিট ও বালতিস্তানের মতো অঞ্চলগুলিও 'লাদাখের অংশ' বলেই দাবি করেছেন। প্রসঙ্গত আকসাই চিন এলাকা যেমন রয়েছে চিনের দখলে, তেমনই গিলগিট ও বালতিস্তান রয়েছে পাকিস্তানের বেআইনি দখলে। ১৯৬২ সালের যুদ্ধে চিনের বিরুদ্ধে ভারত পরাজিত হয়েছিল। এদিন লাদাখের সংসদ জানিয়েছেন, ২০২০ সালে ভারত আর সেই জায়গায় নেই। এখন ভারত চাইলেই এই জায়গাগুলির দখল ফিরিয়ে নিতে পারে।

লাদাখে ভারতের সীমান্ত রক্ষায় লাদাখের স্থানীয়দের বৃহত্তর ভূমিকা নিতে হবে বলেও তিনি জানান। তাঁর মতে সীমান্তবর্তী এলাকার রাখালদের তাদের ঐতিহ্যবাহী চারণভূমিতে যেতে হবে। সেখানে চিন তাদের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ করেছে, কিন্তু তাদের ভারতীয় অঞ্চল দাবি করতে হবে।

এর আগে গালওয়ান উপত্যকায় চিন সেনার অনুপ্রবেশের বিষয় সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছিলেন বিজেপি সাংসদ। এই বিষয়ে রাহুল গান্ধীর প্রশ্নের উত্তরে তিনি সাফ জানিয়েছিলেন ১৯৬২ সালে কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকার সময় চিন লাদাখে ঢুকে পড়েছিল। তারপর কংগ্রেস ও ইউপিএ সরকারের আমলে বারবারই তারা ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে পড়েছে।