গত ৪৮ ঘন্টায় আচমকাই তীব্র তুষাড়পাত শুরু হয়েছে কাশ্মীর উপত্যকায়। এদিন ভোরে মছিল সেক্টরে তুষাড়ধসে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন ৫ ভারতীয় সেনা জওয়ান। এদিন সন্ধ্যায় সেনার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নিখোঁজ ৫ জনকেই পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু, ৫ জনের মধ্যে ৪ জনেরই মৃত্যু হয়েছে।   

গত দুদিন ধরে উত্তর কাশ্মীরের গুরেজ, বান্দিপোড়া, কুপওয়ারা, নওগাম এবং বারমুলার মতো উচ্চাঞ্চলগুলির পুরু বরফের আস্তরণে ঢেকে গিয়েছে। সেনার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তাদের সদস্যদের যেসব জায়গায় মোতায়েন করা হয়েছে, তার মধ্যে সবচেয়ে কম তাপমাত্রা সিয়াচেনের উত্তর গ্লেসিয়ারে। এই এলাকায় এই মুহূর্তে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের ৫৭ ডিগ্রি নিচে। গত ৪৮ ঘন্টার সেনা ঘাঁটিগুলির আশেপাশে ৩২টিরও বেশি জায়গায় তুষারধ্বস নেমেছে।  

আর এরকমই একটি ধ্বসে মছিল সেক্টরে বরফের নিচে চাপা পড়েছিলেন ৫ সেনা সদস্য। প্রথমে সেনার পক্ষ থেকে জানানো হয় তাদের মধ্যে তিনজনকে উদ্ধার করা গিয়েছে। আরেকজনের খোঁজ চলছে। সেই ৪ জনের মধ্যে দুইজন প্রথম থেকেই সাড়া দিচ্ছিলেন না। আরেকটু বেশি রাতে অপরজনেরও সন্ধান মেলে। কিন্তু, সবাইকে উদ্ধার করা গেলেও বাঁচানো গিয়েছে মাত্র একজনকেই।

সেনার পক্ষ থেকে এক বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, গত ৪৮ ঘন্টায় ভারি তুষাড়পাত, তুষাড়ঝড় ও তুষাড়ধ্বসের কবলে পড়ে ৫ সেনা সদস্য ও সীমান্তরক্ষী বাহিনীর এক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। অনেক জায়গা থেকেই সেনাদের সরিয়ে নিয়ে আসার কথা চলছে।