আগেই এনপিআর অর্থাৎ জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধক আপডেট করার কাজ শুরু করার কেন্দ্রের পক্ষ থেকে রাজ্যগুলিকে নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। বুধবার (১৫ জানুয়ারি) কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সবকটি রাজ্যই তাদের রাজ্যে এই নোটিশ জারি করেছে। বাদ গিয়েছে শুধু দুই রাজ্য। পিনারাই বিজয়নের কেরল ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পশ্চিমবঙ্গ। সরকারি সূত্র জানিয়েছে, এই দুই রাজ্য়ই কেন্দ্রীয় সরকার-কে এনপিআর আপডেটের কাজ স্থগিত রাখার আর্জি জানিয়েছে।

গোটা ভারত জুড়েই বিভিন্ন জায়গায় সাধারণ মানুষ থেকে রাজনৈতিক নেতারা এনপিআর-কে বকলমে এনআরসি হিসেবে দেখছেন। এমনকি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের বার্ষিক রিপোর্টেও এনপিআর-কে এনআরসি-র প্রথম ধাপ হিসেবে দেখানো হয়েছে। তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সাফ জানিয়েছেন, এনআরসি ও এনপিআর-এর মধ্যে কোনও সংযোগ নেই।

সরকারি সূত্র আরও জানিয়েছে ২০১১ সালের থেকে ২০২১ সালের এনপিআর-এর প্রশ্নাবলীতে কিছু অদলবদল আনা হয়েছে। আগের বার পরিবারের মাথা হিসেবে পুরুষ ও মহিলা দুই লিঙ্গের মধ্য়েই বাছাই করার সুযোগ দেওয়া হত। এইবার তার সঙ্গে জুড়েছে তৃতীয় লিঙ্গও। গত বছর বাড়িতে শৌচাগার আছে কিনা জিজ্ঞেস করা হত। এইবার জিজ্ঞেস করা হবে সেই শৌচাগার বাড়ির লোকেরা ব্যবহার করতে পারেন কিনা। এইরকম কিছু বদল ঘটেছে।

জানা গিয়েছে, এনপিআর আপডেট করার জন্য তথ্য সংগ্রহে যে সরকারি কর্মীরা যাবেন, তাঁদের সঙ্গে একটি করে মোবাইল ফোন তাকবে। তাতে এই সব তথ্য সগ্রহের জন্য একটি বিশেষ। অ্যাপ থাকবে। সেই অ্যাপেই যাবতীয় তথ্য নথিভুক্ত করা হবে।