রবি শস্য় ঘরে তোলার সময়। এই সময়টা গোটা দেশ জুড়েই উৎসবের মরশুম। উত্তর ভারতের সঙ্গে দক্ষিণ ভারতেই নানাভাবে পালন করা ফসল তোলার উৎসব। আর এই উৎসবেকেই কাজে লাগিয়ে জনতার দরবারে পৌঁছে যাওয়ার আরও একটা চেষ্টা করছেন রাহুল গান্ধী। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী  বৃহস্পতিবার গিয়েছিলেন তামিলনাড়ুতে। তিনি ঐতিহ্যবাহী জাল্লিকাট্টু দেখে মুগ্ধ হয়েছেন। একই সঙ্গে তিনি তামিলনাড়ুর পোঙ্গল উৎসবেও যোগদান করেন।

রাহুল গান্ধীর সঙ্গে ছিলেন সেখানে কংগ্রেসের জোটসঙ্গে এডিএমকে-র প্রধান স্ট্যালিন। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে দুই দল রাজ্যের ৩৮টির মধ্যে ৩১টি আসন দখল করেছিল। এদিন স্ট্যালিনের উপস্থিতিতেই রাহুল গান্ধী তামিল সংস্কৃতির ভূয়সী প্রশংসাকরেন। তিনি বলেন তামিলবাসীদের  আত্মসম্মান আর অনুভূতি তাঁকে এই উৎসবের দিনে সেখানে টেনে নিয়ে এসেছে। তাঁর কাথায় তামিল ইতিহাস দেশকে নতুন পথ দেখায়। তামিল সংস্কৃতি আর ইতিহাসেরর এই মেলবন্ধ তাঁকে একটি সুন্দর দিন উপহার দিয়েছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। জাল্লিকাট্টুতে যেভাবে ষাঁড় আর তরুণদের নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে তারও প্রশংসা করেন রাহুল গান্ধী। 

শুধু রাহুল গান্ধী  একাই দক্ষিণভারত সফরে যাননি, এই বিশেষদিনটির কথা স্মরণ করে বিজেপি প্রধান জেপি নাড্ডা আর রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের প্রধান মোহত ভাগবতও রয়েছেন চেন্নাইতে। অন্যদিকে এদিন একবারে নিজস্বগণ্ডিতেই সীমাবদ্ধ থেকে মরকসংক্রান্তির উৎসবে মাতলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহ।  আমেদাবাদের একটি ফ্ল্যাট বাড়িতে লাটাই হাতেও দেখা গেল তাঁকে। বেশ কয়েকজন কচিকাচার সঙ্গে তাঁকে ঘুড়ি ওড়াতে দেখা গেল।