ভারতীয় সেনা বাহিনীর একজন জওয়ান পাকিস্তানের অপারেটারদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার করছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। আর সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নর্দান কমান্ডাকে গোটা ঘটনা তদন্ত করে দেখার নির্দেশ দিয়েছে ভারতীয় সেনা বাহিনী। সেনা সূত্রে খবর অভিযুক্ত পঞ্জাবের সৈন্য।  নর্দান কমান্ডের অধীনে কর্মরত ছিল। তথ্য পাচারের সময় তাঁকে হাতেনাতে ধরা হয়েছিল। 

এই ঘটনা প্রকাশের পরই আদালত তদন্তের আদেশ দিয়েছে। সূত্রের খবর সংশ্লিষ্ট সেনা জওয়ান কী ভাবে তথ্য পেয়েছিল, কী পরিমাণ তথ্য পাঠিয়ে, এই ঘটনায় আরও কেউ জড়িত রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানি সংস্থাগুলির বিষয়েও খোঁজ খবর নিতে বলা হয়েছে বলেও জানাগেছে সূত্র মারফত। সূত্রের খবর পূর্ব লাদাখ সেক্টরে চিনের সঙ্গে সামরিক অস্থিরতা চলাকালীন সময় তথ্য পাচার করা হয়েছিল। সূত্রের খবর তদন্তে দেখা হবে সংশ্লিষ্ট সেনা -জওয়ানের সঙ্গে শত্রুপক্ষের সম্পর্ক কতটা নীবিড় ছিল, সেই সেনা সদস্য কতটা আপোশ করেছিল তাও অনুসন্ধান করে দেখা হবে। 

লাদাখ সেক্টরে চিন ও পাকিস্তান উভয় সীমান্তে সুরক্ষার দায়িত্বে রয়েছে উধমপুরের নর্দান কমান্ড। এপ্রিল-মে মাসে চিনা অনুপ্রবেশের পর এই এলাকায় সেনা সংখ্যা বাড়ন হয়েছিল। পাশাপাশি নিরাপত্তার দায়িত্বও অনেকটা বেড়ে গিয়েছিল দায়িত্ব প্রাপ্ত সেনা জওয়ানদের। কিন্তু সেই সময় এই ঘটনা ঘটেছিল বলে উদ্বেগ বাড়ছে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আধিকারিকদের মধ্যে।