গরমের ছুটির পর স্কুল খোলার পর গরমের ছুটিতে বাড়ির কাজ দেখতে চান শিক্ষক-শিক্ষিকারা। সেইমতো ছাত্র-ছাত্রীরাও ছুটির দিনে সমস্ত হোমওয়ার্ক সেরে রাখে। ছাত্রজীবনে এই চিত্রটি খুবই স্বাভাবিক। তাই আর পাঁচজন শিক্ষিকার মতো তিনিও তাঁর ছাত্রকে গরমের ছুটির হোমওয়ার্ক দেখানোর কথা বলেন। কিন্তু তার পরিণাম যে কী হতে চলেছে তা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি ওই শিক্ষিকা। 

সোমবার হরিনয়ানার সোনিপতে। একাদশ শ্রেণীর ছাত্রের কাছে হোমওয়ার্ক দেখতে চাওয়ায় শিক্ষিকাকে ছুরি মারে ওই ছাত্র। ঘটনায় চমকে যায় ক্লাসের বাকি ছাত্ররাও। অনেকেই আতঙ্কিত হয়ে শ্রেণীকক্ষের মধ্যেই চেঁচামেচি করতে শুরু করে দেয়। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে শিক্ষিকাকে ছুরি মারার পর অভিযুক্ত ছাত্র দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু স্কুলের অন্যান্য শিক্ষকরা তাকে প্রাণপনে আটকানোর চেষ্টা করে। এই ঘটনা কার্যত চমকে দিয়েছে দেশের শিক্ষা মহলকে। 

আহত শিক্ষিকার নাম মুকেশ কুমারি। সোনিপতের ভিগান জেলার শ্রী রাম কৃষ্ণ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা তিনি। ঘটনার পরেই শিক্ষিকাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশকে দেওয়া বয়ানে ওই শিক্ষিকা জানিয়েছেন অভিযুক্ত ওই যুবক কোনওদিনও নিজের হোমওয়ার্ক করে আনত না, এদিন তাই হোমওয়ার্ক দেখতে চাওয়ায় আচমকাই তাঁকে ছুরি দিয়ে কোপ মারে ওই যুবক। ঘটনার পরে সোনিপতের ডিএসপি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন এই ঘটনায় অভিযুক্ত একজন নাবালক। আর তাই তার নাম প্রকাশ্যে আনা হচ্ছে না। তবে তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও রুজু করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।