অতি বৃষ্টিতে নদীর দু'পাড় ছাপিয়ে বন্যা হয়, এমনটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বেঙ্গালুরু শহর, যেখানে মাস তিনেক আগে তীব্র জলের অভাব দেখা দিয়েছিল, সেখানেই দিঘির পাড় ভেঙে আচমকা বন্যা দেখা দিয়েছে। রবিবার আচমকাই হুলিমাভু দিঘির বাঁধ ভেঙে হুহু করে জল ঢুকে পড়ে বেঙ্গালুরুর নিচু এলাকাগুলিতে। যার ফলে বিপর্যস্ত অন্তত ২৫০টি পরিবার।

ব্রুহাত বেঙ্গালুরু মহানগর পালিকে-র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে হুলিমাভু এলাকার বেশ কিছু বাড়ি রবিবার রাত থেকে দলের তলায় চলে গিয়েছে। ভেসে গিয়েছে বহু গাড়ি ও মোটর বাইক। ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০টি পরিবারকে যত দ্রুত সম্ভব নিরাপদ এলাকায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ চলছে। তাদের ত্রাণের ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

বেঙ্গালুরুর মেয়র এম গৌতম কুমার জানিয়েছেন, কিছু মানুষ হুলিমাভু দিঘিতে একটি আর্থমুভার যন্ত্রের সাহায্যে একটি পাইপ বসাতে গিয়েছিলেন। সেই সময়ই দিঘির বাঁধ ভেঙে যায়। বিবিএমপি এই বিষয়ে তদন্ত করবে। তবে, তার আগে বিপন্ন মানুষদের সহায়তাই পুর কর্তৃপক্ষের প্রাথমিক লক্ষ্য।

তবে শুধু বিবিএমপি-ই নয়, দমকল ও জরুরি পরিষেবা বিভাগের কর্মীরাও বন্যাদুর্গত এলাকায় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার কাজে লেগেছেন। যেসব আবাসনের নিচে জল জমে আছে, সেখান থেকে জল বের করার জন্য পাম্প ব্যবহার করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি পুরসভার ইঞ্জিনিয়াররা দিঘির বাঁধ মেরামতির কাজ শুরু করেছেন।