গত রবিবার দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়েছিল। এখনও পর্যন্ত সেটাই ছিল এদেশে একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা সর্বোচ্চ। কিন্তু মঙ্গলবার সেই সংখ্যাকেও ছাপিয়ে গেল ভারত। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা সংক্রমমের শিকার হয়েছেন ৫,৬১১ জন। যার ফলে ভারতে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১,০৬, ৭৫০ জন। গত সপ্তাহেই আক্রান্তের সংখ্যা চিনকে ছাপিয়ে যায় ভারত। এখন করোনা আক্রান্ত দেশ হিসাবে এশিয়ার ভারতের সামনে কেবল রয়েছে ইরান। একসময় ইরানে করোনা পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করেছিল। তবে এখন অবস্থা আগের থেকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে বলে দাবি করা হচ্ছে।  ইরানে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা ১,২৪,৬০৩। মৃত্যু হয়েছে ৭,১১৯ জনের।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় এদেশে করোনার বলি হয়েছে ১৪০ জন। ফলে ভারতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩,৩০৩। দেশে বর্তমানে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬১,১৪৯। সোমবারই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাখের গণ্ডি ছাড়িয়ে যায়। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানাচ্ছে, ভারতে করোনা মুক্ত হয়েছেন এখনও পর্যন্ত ৪২,২৯৮ জন। ফলে দেশে সুস্থতার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৯.৬২ শতাংশ।

 

 

এদিকে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখনও এক নম্বরে রয়েছে মহারাষ্ট্র। রাজ্যটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ হাজার ছাডিয়েছে। কেবল মুম্বইতেই সংক্রমণের শিকার ২১ হাজারের বেশি মানু। এই অবস্থায় রেড জোনে থাকা মুম্বই ও পুনের মত শহরগুলির বাসিন্দাদের বাইরে বাইরে না যাওয়ার অনুরোধ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। এদিকে করোনা আক্রান্ত রাজ্য হিসাবে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে তামিলনাড়ু। রাজ্যটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১২,৪৪৮। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণের শিকার হয়েছে ৬৮৮ জন। এদিকে তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর রাজ্য গুজরাত। এই রাজ্যেও আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজারের বেশি।এদিকে পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়ি ফেরায় উত্তরপ্রদেশে তাঁদের থেকে ক্রমেই বাড়ছে সংক্রমণ। ইতিমধ্যে যোগী রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে।