ভয়ঙ্কর অন্ধবিশ্বাসে নিখোঁজ পুত্রবধূকে নিরাপদে বাড়িতে ফিরিয়ে আনার জন্য নিজের জিভ কেটে ভগবান শিবের কাছে নিবেদন করলেন ঝাড়খণ্ডের সেরাইকেলা-খারসওয়ান জেলার এক মহিলা। ঘটনাটি ঘটে গত রবিবার (১৬ অগাস্ট) সন্ধ্যায়। প্রথমে হাসপাতালে যেতে রাজি না হলেও পরে তাকে রাজি করিয়ে জামশেদপুরের এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আপাতত তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে ওই মহিলার নাম লক্ষ্মী নিরালা। সেরাইকেলা-খারসওয়ান-এর এনআইটির ক্যাম্পাসের ভিতরেই তিনি থাকেন। সেখানেই এক বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন। গত ১৪ অগাস্ট শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁর পুত্রবধূ আচমকাই সন্তান-সহ নিখোঁজ হয়ে যান। তারপর থেকেই ঠাকুরঘরে ঢুকে শিবের কাছে পুত্রবধূর নিরাপদে প্রত্যাবর্তনের জন্য প্রার্থনা করছিলেন। রবিবার তাঁকে কেউ একটা জিভ কেটে নিবেদন করার পরামর্শ দেন। সেই মতো তিনি রবিবার রাতে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তাঁর স্বামী।

তিনি জানিয়েছেন শুক্রবার রাত থেকেই তিনি ও তাঁর ছেলে দুজনেই পুত্রবধূকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেন। না পেয়ে পরেরদিন শনিবার তাঁরা পুলিশের কাছে এই বিষয়ে একটি নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করেন। শুক্রবার রাত থেকে ঠাকুরঘরেই ছিলেন লক্ষ্মী দেবী। রবিবার রাতে হঠাতই এমন কাণ্ড ঘটান। তবে এখনও পুলিশ বা ভগবান শিব, কেউই তাঁদের পুত্রবধূর কোনও সন্ধান দিতে পারেননি। কে-ই বা লক্ষ্মীদেবীকে এই কঠোর পদক্ষেপ নিতে পরামর্শ দিল, তাও জানা যায়নি। সুস্থ থাকলেও তিনি কথা বলার শক্তি হারিয়েছেন।