এক ধাক্কায় অনেকটা বাড়ল ভারতীয় বায়ুসেনার শক্তি। বায়ুসেনার হিন্দাল এয়ারফোর্স স্টেশনে এসে গেল বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত হামলাকারী হেলিকপ্টার বোয়িং এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচে। আপাতত চারটি এই ধরণের কপ্টার পাঠানো হয়েছে। পরের সপ্তাহেই আরও চারটি কপ্টার এসে গেলে মোট চারটিকে পাঠিয়ে দেওয়া হবে পাঠানকোট এয়ারফোর্স স্টেশনে। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে সরকারিভাবে বায়ুসেনা অ্যাপাচে ব্যবহার করা শুরু করবে।

২০১৫ সালে ২২টি অ্য়াপাচে কেনার বিষয়টি পাকা করেছিল ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। এরপর ২০১৭ সারলে আরও ৬টির বরাত দেওয়া হয়। এবার সময়ের আগেই প্রথম আটটি অ্যাপাচে এসে গেল ভারতে। ২০২০ সালের মধ্যে ভারতীয় বায়ুসেনা ২২টি অ্যাপাচে হেলিকপ্টারের বাহিনী গড়ে তুলবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বর্তমানে, এএইচ-৬৪ অ্যাপাচেই বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত সামরিক হেলিকপ্টার বলে স্বীকৃত। য়ুদ্ধএর সময় বিভিন্ন ভূমিকায় এই কপ্টার ব্যবহার করা যায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-সহ একাধিক প্রথম সারির দেশের সামরিক বাহিনী অ্যাপাচে ব্যবহার করে থাকে। এই কপ্টারগুলি তৈরি করা শুরু করার পর থেকে সারা বিশ্বে ২২০০টিরও বেশি অ্যাপাচে সাপ্লাই দিয়েছে বোয়িং সংস্থা। ১৪ তম দেশ হিসেবে সেই তালিকায় জুড়ল ভারতের নাম। তবে ভারত কিন্তু অ্যাপাচের সবচেয়ে আধুনিক কপ্টারগুলি পাচ্ছে। অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে এই নতুন অ্যাপাচেগুলিতে।

আগের অ্যাপাচেগুলির থেকে বর্তমান মডেলগুলির ঘাত বেশি হওয়ায় অনেকটা উপরে উঠতে পারে। বর্তমানে পুরো কপ্টার ডিজিটাল প্রযুক্তিতে পরিচালনা করা হয়। আরও বেশিদিন টিকে থাকবে কপ্টারগুলি। একই সঙ্গে জমি ও উপকূলবর্তী এলাকায় আক্রমণ চালাতে পারে।