সামনেই বাজেট। তার আগেই বাজেটের অভিমুখ সম্পর্কে পরিষ্কার বার্তা দিয়ে রাখলেন নির্মলা সীতারামণ। রাজ্যসভায় অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যে পরিষ্কার আর্থিক বিকাশকে চাঙ্গা করার লক্ষ্যেই বাজেট করতে চলেছে সরকার।  প্রসঙ্গত, ৫৯ বছর বয়সে অৰ্থমন্ত্রকের দায়িত্ব নিয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি পড়েছেন নির্মলা সীতারামণ। সংখ্যাতত্ত্বের নিরিখে গত ৪৫ বছরের মধ্যে বেকারত্ব ইতিমধ্যে শীর্ষে পৌঁছেছে।

সেইসঙ্গে জিডিপিও কমছে। গতবছরেএপ্রিল-জুন এই সময় কালে জিডিপির পরিমাণ অনেকটা বেড়ে প্রায় ৮ শতাংশে পৌঁছেছিল। তার পরেই তা কমে। এই বছর জানুয়ারি-মার্চ সময়ে তা ৫.৮ শতাংশে এসে পৌঁছয়। এটিও গত পাঁচ বছরের সবচেয়ে কম জাতীয় উৎপাদন।

আরও পড়ুনঃ চিটফাণ্ড ও বেকারত্ব, মোদী সরকারের দুই বিপদের ইঙ্গিত উঠে আসবে আর্থিক সমীক্ষায়
দেশে ঋণখেলাপের পরিমাণ দেড় লক্ষ কোটি টাকা, দেশের মানুষের টাকা চুরি করছেন কারা

এই রকম আবহেই হাল ধরতে মোদী এনেছেন নির্মলা সীতারামণকে। মঙ্গলবারই সীতারামন রাজ্যসভা থেকে বলেন নতুন সরকার কিষাণ সম্মান নিধি যোজনায় কৃষকদের ৬০০০ টাকা করে দিতে চায়। এই  ঘোষণা থেকেই পরিষ্কার, কৃষকের ক্ষমতায়নে জোর দিচ্ছে সরকার। প্রসঙ্গত আর্থিক উপদেষ্টা কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণিয়াম আগামী কালই আর্থিক সম‌ীক্ষার রিপোর্ট পেশ করবেন। তিনি মোদী সরকারের এই কৃষক ভাতার ভূয়সী প্রসংশা করেছেন।

সীতারামণ চাইছেন, একটি ভারসাম্যের নীতি আনতে। নরেন্দ্র মোদীর রান্নার গ্যাস, বিদ্যুতের মতো ক্ষেত্রগুলিতে পরিকল্পনাগুলির সঙ্গে সাযুজ্য রেখেই নির্মলা চাইছেন নতুন দাওয়াই দিতে। তাঁর প্রতিটি পদক্ষেপই হবে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার অভিপ্রায়ে। প্রসঙ্গত গত কয়েক মাসের গাড়ি বিক্রি থেকেই প্রমাণ বাজার প্রবল ভাবে ঝিমিয়ে রয়েছে। আর্থিক উপদেষ্টারাও বলছেন, বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলির বেলাগাম টাকার লেনদেন ভারতের অর্থনীতির স্থায়ী ক্ষতি করছে। এই অবস্থায় কী ভাবে পরিস্থিতি সামাল দেন নির্মলা সেটাই দেখার।