প্রথমববার উৎক্ষেপণ বাতিল হওয়ার পরও হাল ছাড়েননি তাঁরা। ঠিক এক সপ্তাহের মাথায় ফের উৎক্ষেপণের দিনক্ষণ স্থির করেছেন। উৎক্ষেপণ সফল হয়েছে চন্দ্রযান-২-এর। ইসরোর বিজ্ঞানীদের  প্রশংসায় পঞ্চমুখ সারা দেশ। তবে শুধু দেশেই নয় বিদেশের কাছ থেকেও শুভেচ্ছা বার্তা পেয়েছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা। কিন্তু দেশের তরফ থেকে কী পুরস্কার তাঁরা পেলেন, জানেন?

একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, চলতি মাস থেকেই বেতন কমানো হচ্ছে ইসরোর বিজ্ঞানীদের। গত ১২ জুন তারিখে  একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়, যেখানে বলা হয়েছে যে পদোন্নোতি হলে যে অনুদান পেয়ে থাকেন বিজ্ঞানীরা সেটা আর পাবেন না ইসরোর বিজ্ঞানীরা। তবে এই নির্দেশিকা ইসরোর সকল বিজ্ঞানীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। শুধুমাত্র কয়েকটি বিশেষ শ্রেণীর বিজ্ঞানীর ওপরই এই এই নির্দেশিকা বহাল হবে। তবে এ ই বিশেষ শ্রেণীর মধ্যে কারা পড়ছেন সেই বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছুই জানা যায়নি। 

প্রসঙ্গত এবারের বাজেটে ইসরোর খাতে বরাদ্দ মোট বাজেটের পরিমাণ ১২,৪৭৩.২৬ কোটি টাকা। কিন্তু তা  সত্ত্বেও কেন কমানো হচ্ছে অনুদানের পরিমাণ তার কারণ এখনও অধরা। দিন রাত কঠিন পরিশ্রমের পর প্রায় প্রতিটি মিশনেই সাফল্য লাভ করেছে ইসরোর বিজ্ঞামীরা। এখন নানা মহলে প্রশ্ন উঠছে ইসরোর সাফল্য যেখানে গোটা বিশ্বে সমাদ্রিত হচ্ছে সেখানে এই উপহারই কি বিজ্ঞানীদের প্রাপ্য? যদিও এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কোনও প্রতিক্রিয়া এখনও পাওয়া যায়নি।