প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সুরে সুর মিলিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, চিনা সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেনি। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন এলাকায় নতুন করে আর কোনও সমস্যা  নেই। ভারতের একটি প্রথম সারির সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় একথা জানিয়েছেন রাজনাথ সিং। তিনি আরও এলএসিতে স্ট্যান্ড অফ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের স্পষ্ট অবস্থান রয়েছে। সীমান্ত পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে ভারতের। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে চিনের সঙ্গে কমান্ডার পর্যায়ের আলোচনা চলছে। তবে এই সমস্যা কবে মিটবে সে নিয়ে কোনও আলো দেখাতে পারেননি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তিনি অবশ্য জানিয়েছেন ১৯৬২ সাল ২০১৩ সাল পর্যন্ত সীমান্তে কী পরিস্থিতি ছিল তা নিয়ে তিনি কোনও আলোকপাত করতে পারবেন না। তবে সীমান্তে ভারতীয় জওয়ানরা প্রবল সাহস দেখিয়েছেন বলেও তিনি জানিয়েছেন। পাশাপাশি রাজনাথ সিং স্পষ্ট করেই বলেছেন যে, আমি কেবল এইটুকু বলতে পারি যে কেউ কখনও আমাদের অঞ্চলে প্রবেশের চেষ্টা করেনি। 

ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং যখন এই কথা বলছেন তখন চিনা রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী চিন প্রায় ২ ডজনেরও বেশি বেসরকারি সংস্থার একটি তালিকা তৈরি করেছে। যে সংস্থাগুলি অতি উচ্চ উচ্চতায় মোতায়েন থাকার জন্য চিনা সেনাদের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম, অস্ত্র ও গ্রাফিন পোষাক সরবরাহ করবে। সূত্রের খবর চিনা সেনা পূর্ব লাদাখ সেক্টরে মোতায়েতেন থাকা চিনা সেনার জন্যই এই তালিকা তৈরি করেছে। তবে কোন কোনও বেসরকার সংস্থার সঙ্গে বেজিং প্রশাসন এখনও পর্যন্ত যোগাযোগ করেছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু সূত্রের খবর চিন  পোর্টেবল সোলার চার্জার. পোর্টেবেল অক্সিজেনারেটর কেনার পরিকল্পনা করছে। 

একটি সূত্র বলছে গ্রাফিনের তৈরি পোষাক কেনার জন্য বিশেষ তৎপরতা শুরু করেছে বেজিং। গ্রাফিং স্মিয়ার্ট টেক্সটাইল।গ্রাফিনিট জ্যাকেট গ্রাফিন দিয়ে তৈরি। তাই একটি তাপ শোষণের ক্ষমতা রাখে। প্রয়োজনীয় সময় তাপ শেষণ করে ব্যবহারকারীকে উষ্ণ রাখতে সাহায্য করে। ব্যাক্টিরিয়া দূর করতে সাহায্য করে। বিদ্যুৎ পরিচালনা করে মানব শরীরে অতিরিক্ত আদ্রতা ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। প্রবল ঠান্ডার মধ্যেই ব্যবহারকীরেকে গরম থাকবে সাহায্য করে এই পোষাক।