জলবায়ুর পরিবর্তনের ঘটনা ইতিমধ্যেই বিশেষজ্ঞদের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দিয়েছে। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার একটি থিঙ্ক ট্যাঙ্ক -এর পক্ষ থেকে প্রকাশ করা হয়েছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, জলবায়ুর পরিবর্তন পরিবেশের উপর যেভাবে প্রভাব বিস্তার করেছে, তাতে করেই ২০৫০ সালের মধ্যেই ধ্বংস হয়ে যেতে পারে মানব সভ্যতার প্রায় ৯০ শতাংশ। 

থিঙ্ক ট্যাঙ্কের পক্ষ থেকে ডেভিড স্প্রাট জানান, ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রি বৃদ্ধি পাওয়া মানেই সমুদ্রের জলস্তর অর্ধেক মিটার উঁচু হওয়া। ফলত, আরব সাগরের তীরবর্তী অঞ্চল মুম্বইয়ে বিপদ ঘনিয়ে আসছে। মনে করা হচ্ছে, এর ফলে ২০৫০-এর মধ্যে মুম্বই চলে যেতে পারে জলের নীচে। প্রসঙ্গত, প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে বলা হয়েছিল, পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধির হারকে ৩ ডিগ্রি থেকে ৫ ডিগ্রির মধ্যে রাখার চেষ্টা করতে হবে। প্যারিস জলবায়ু চুক্তির এই বক্তব্যকে কার্যত চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার থিঙ্ক ট্যাঙ্ক। 

এই থিঙ্ক ট্যাঙ্ক-এর কথায়, তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রির বেশি হলে মেরু অঞ্চলের বরফ গলে গিয়ে নির্গত হবে দূষিত মিথেন গ্যাস। আর এইভাবে তা যদি ৪ ডিগ্রি বাড়ে তাহলে বরফ না থাকায় গরমে জলশূণ্যতার কারণে বেশিরভাগ মানুষেরই বেঁচে থাকা অসম্ভব হয়ে উঠবে। আর এইভাবে চলতে থাকলে একদিন প্রশ্নের মুখে দিয়ে দাঁড়াবে মানবসভ্যতার অস্তিত্বও।