করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কেরলের তরুণীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। শুক্রবার এমনই দাবি করলেন কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, রোগীর শরীর থেকে সংগ্রহ করা কফের নমুনায় যদি করোনা ভাইরাসের জীবাণুর অস্তিত্ব না থাকে, তাহলে তাঁকে সম্পূর্ণ সুস্থ করে তোলা সম্ভব। 

চিনের উহান প্রদেশে ডাক্তারি পড়তে যাওয়া এক তরুণীর শরীরে করোনা ভাইরাস- এর জীবাণু মিলেছে। কেরলের একটি হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে তাঁর চিকিৎসা চলছে। ভারতে এই তরুণীর শরীরেই প্রথম করোনা ভাইরাস-এর জীবাণু মিলল। পরিস্থিতি পর্যালোচনায় এ দিন কেরলের ত্রিশূরে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সেখানে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন- এর প্রতিনিধিরাও ছিলেন। 

বৈঠকের পরে কে কে শৈলজা দাবি করেন, এই মুহূর্তে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই তরুণীর মধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কোনও উপসর্গ নেই। তাঁর কফের নমুনা পুণের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি- তে পাঠানো হয়েছে। সেই পরীক্ষার ফল নেতিবাচক এলেই ওই তরুণীকে সম্পূর্ণ সুস্থ করা সম্ভব।

এ ছাড়াও কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস উপদ্রুত এলাকা থেকে কেউ এলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির অন্তত ২৮ দিন অন্য কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ করা উচিত নয়। 

এ দিকে চিনের উহান থেকে ফেরত আসা ছ' শো পরিবারকে আলাদা করে রাখার জন্য দিল্লিতে ছাওলা ক্যাম্প-এ ব্যবস্থা করেছে ইন্দো টিবেটান বর্ডার পুলিশ। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবেই পরিবারগুলিকে এখানে কিছুদিন রাখা হবে। শনিবারই অন্তত চারশো ভারতীয়কে নিয়ে চিনের উহান প্রদেশ থেকে নিয়ে দিল্লি পৌঁছেছে এয়ার ইন্ডিয়া-র বিশেষ বিমান।