আবারও চোখ রাঙাচ্ছে দেশের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৮৯ লক্ষ ৫৮ হাজার ৪৮৪। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৪৫ হাজার ৫৭৬ জন। গত তিন দিন ধরে দেশে করোনা আক্রান্তের দৈনিক গড় ছিল ৩৯ হাজারের নিচে। হঠাৎ করেই বৃহস্পতিবার বেড়ে যায় আক্রান্তের সংখ্যা। উৎসবের মরশুমের কেটে গেলে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের আশঙ্কা সত্য়ি করেই কী দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে? ইতিমধ্যেই তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। শীতকালে এই রোগের প্রাদুর্ভাব বাড়বে বলে আগে থেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১,৩১,৫৭৮ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৮৫ জনের। এখনও পর্যন্ত সুস্থতার হার স্বস্তি দিচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য  অনুযায়ী দেশে সুস্থ হয়ে যাওয়ার মানুষের সংখ্যা ৮৩ লক্ষেরও বেশি। কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থতার হার ৯৩ শতাংশেরও বেশি। যা অন্যান্য দেশগুলির তুলনায় অনেকটাই বেশি। 

 

গত ২৪ ঘণ্টায় দৈনিক সংক্রমণে এগিয়ে রয়েছে দেশের জাতীয় রাজধানী দিল্লি। ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজারেরও বেশি মানুষ  দিল্লিতে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে বলেও দাবি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কেরল। সেখানে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজারে বেশি। করোনা আক্রান্ত রাজ্যগুলির ক্রম তালিকা এখনও শীর্যস্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র, আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ। পরের চারটি স্থান দখল করেছে দক্ষিণের চারটি রাজ্য কর্ণাটক,অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিল নাড়ু ও কেরল। আক্রান্ত রাজ্যের ক্রমতালিকায় ৮ নম্বর স্থানে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ।