দেশে দাবানলের মতই দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে করোনা সংক্রমণ। ইতিমধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লক্ষ পেরিয়ে গিয়েছে। বিশ্বে করোনা আক্রান্ত দেশের তালিকায় ৩ নম্বরে উঠে এসেছে ভারত। ভারতে যেভাবে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তার জন্য কেন্দ্রের মোদী সরকারে দিকেই তোপ দাগল একদা বিজেপির সহযোগী শিবসেনা।

 

সম্প্রতি শিবসেনার মুখপত্র সামানাতে একটি সম্পাদকীয় প্রকাশ হয়েছে। যেখানে লেখা হয়েছে দেশে চলতে থাকা করোনা পরিস্থিতি মহাভারতের থেকেও জটিল আকার নিয়েছে। মহাভারতে কৌরবদের বিরুদ্ধে পাণ্ডবরা ১৮ দিনেই জয় লাভ করেছিল। কিন্তু বর্তমান  ১০০ দিন পেরিয়ে যাওয়ার পরেও  ভারতে  করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল হয়ে উঠছে। দেশজুড়ে তৈরি হওয়া এই মহামারী পরিস্থিতির জন্য একদা জোটসঙ্গী বিজেপির প্রধানমুখ নরেন্দ্র মোদীকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে শিবসেনা। সামানায় লেখা হয়েছে, লকডাউন শুরুর সময় ২১ দিনেই যুদ্ধ জয়ের কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু ১০০ দিন পার করেও লড়াই ক্রমে কঠিন হয়ে উঠছে। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন ২৫ হাজারের কাছাকাছি থাকছে। 

আরও পড়ুন: এইচ-১ বি'র পর এবার পড়ুয়াদের ভিসা বাতিলের পথে আমেরিকা, আশঙ্কার মেঘ ভারতীয় ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে

এদিকে দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি সবচেয়ে উদ্বেগ জনক। মারাঠা রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ২ লক্ষ ১১ হাজারেরও বেশি মানুষ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সংক্রমণের শিকার হয়েছে ৫,৩৬৮ জন। গত পয়লা জুলাই থেকে ৬ দিনে মহারাষ্ট্রে সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৩৭,২২৮ জন। রাজ্যে মৃতের সংখ্যা ৯ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। তবে মৃতের সংখ্যা মোট আক্রান্তের ৪.২৬ শতাংশ বলেই দাবি করছে মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্য দফতর। 

আরও পড়ুন: রাজধানীতে আক্রান্ত ১ লক্ষ পেরিয়ে গেল, ৭ লক্ষ সংক্রমণ নিয়ে বিশ্বের ক্রম তালিকায় ৩ নম্বরে ভারত

এই পরিস্থিতিতে লকডাউন বিধি কিছুটা শিথিল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। আগামী ৮ জুলাই থেকে মরাঠা রাজ্যে হোটেলও খুলতে চলেছে। তবে তাতে ৩৩ শতাংশের বেশি অতিথি থাকতে পারবেন না বলে প্রশাসনের তরফে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।