দুটো পায়ের একটিও না থাকলেও ওড়া যায়। সবার উপরে তুলে ধরা যায় ভারতের তিরঙ্গা। দেখিয়ে দিলেন দেব মিশ্র। প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন পাড়ায় পাড়ায় যখন ভারতের দাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হচ্চে তখন এই দুই পা না থাকা ব্যক্তিও সব প্রতিবন্ধকতা জয় করে এক অন্যরকমের পতাকা তুললেন। তিনি নিজেই হয়ে উঠলেন জাতীয় পতাকা।

সম্প্রতি ব্যবসায়ী আনন্দ মাহিন্দ্রা টুইটারে তাঁর জাতীয় পতাকা হয়ে ওঠার ভিডিওটি শেয়ার করেছেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে দুই পা না থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র হাতের জোরে, হাতের উপর ভর করেই ওই ব্যক্তি একটি পোল ধরে উঠে যাচ্ছেন। তাঁর পরণের টি-শার্টে ভারতেরজাতীয় পতাকার তেরঙ্গা রঙ এবং মাঝে অশোক চক্র। তারপর ওই ব্যক্তি হাতে ভর দিয়েই পোলের মাথায় পতাকা হয়ে ওঠেন।

আনন্দ মাহিন্দ্রা ভিডিওটি শেয়ার করে ক্যাপশনে লিখেছেন, এই ভিডিও আমাদের অনুপ্রেরণা দেয়। নিজেদের দুঃখ কষ্ট ভুলিয়ে দেয়। নিজেদের ছোট্ট গণ্ডি ভেঙে এমন কিছু বৃহত্তর কারণের কথা মনে করিয়ে দেয় যা আমাদের ভালো কাজ করতে সক্ষম করে। আর কথা না বাড়িয়ে দেখে নেওয়া যাক ভিডিওটি -

জানা গিয়েছে ২০১৫ সালে এক ট্রেন দুর্ঘটনায় দুই পা-ই হারিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু, সেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার হতাশা জয় করে তিনি আজ একজন দক্ষ বডি বিল্ডার হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছেন। ইনস্টাগ্রামে তাঁর ভিডিও দারুণ জনপ্রিয়। ২০১৮ সালে তাঁকে রিয়েলিটি টিভি শো 'ইন্ডিয়া গট ট্যালেন্ট'-এও দেখা গিয়েছিল।

জাতীয় পতাকাটির প্রতি তাঁর এমন অভিনব শ্রদ্ধা নিবেদন স্বাভাবিকভাবেই সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুণ প্রশংসা পেয়েছে। অল্প সময়েই ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে।  অনেকেই জানিয়েছেন, এটা অবিশ্বাস্য, কেউই তাঁকে থামাতে পারবে না। একজন জানিয়েছেন তিনি য়ে আসনটি করছেন তার নাম 'ফ্ল্যাগ'। তার যথার্থ ব্যবহার তিনিই করচেন। এমনকী বলিউড অভিনেতা রীতেশ দেশমুখ-ও ভিডিওটি শেয়ার করেছেন। বলিউডি হিরো লিখেছেন, 'এই ব্যক্তিই আমার নায়ক। আমি তাকে স্যালুট করি'।