ডাকসাইটে সুন্দরী তিনি। রাহুল গান্ধীর ডান হাত বলা হয় তাকে।  আপাতত দেশজুড়ে জল্পনা, কংগ্রেসের ভরাডুবি সময় কি হাত ছেড়ে দিলেন দিব্যা!  হ্যাঁ, নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে সারা দেশে শোরগোল ফেলে দিয়েছেন দিব্যা। প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, তবে কি এবার কংগ্রেস থেকে হাত সরিয়ে নিলেন দিব্যা স্পন্দনাও?

সূত্রের খবর, দিন দুয়েক আগেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নির্মলা সীতারামন কে টুইট করে দিব্যা অভিনন্দন জানান।  এর পরেই হঠাৎ গায়েব হয়ে যায় দিব্যার নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট। টুইটার দেখাতে শুরু করে এই নামে কোনও অ্যাকাউন্ট খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। গুঞ্জন শুরু হয় রাজনৈতিক মহলে , তবে কি এবার দিব্যা কংগ্রেস ছাড়ছেন। 

রাহুল গান্ধীর রণনীতিতে দিব্যা স্পন্দনার মস্তিষ্ক বড় ভূমিকা পালন করে, এটা কংগ্রেসের শীর্ কর্তারা সকলেই জানে। কাজেই তাঁর এই বিপর্যয়ের পরেই টুইটার ডিলিট করার ঘটনাটি খুব সাধারণ নয়। 

দিব্যা নিজে অবশ্য এই সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে চাননি সংবাদমাধ্যমের কাছে।  প্রসঙ্গত দিন দুয়েক আগেই কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় কমিটির  বৈঠকের পর জানিয়ে দেন অন্তত মাসখানেক কংগ্রেসের সমস্ত শীর্ষ নেতাদের সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য, এই কারণেও দিব্যা টুইটার ‌অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে থাকতে পারেন। 

তবে অন্য গন্ধ পাচ্ছেন অনেকে। নতুন মন্ত্রিসভা গঠিত হওয়ার পরেই অর্থমন্ত্রকের দায়িত্ব পাওয়ার নির্মলা সীতারাম কে টুইট করে দিব্যা জানিয়েছিলেন, আমি আপনাকে সমর্থন করি।  এই মন্তব্যই কি দলবদল এর ইঙ্গিত নয়? ধোঁয়াশা থাকছেই।