কেন্দ্রীয় বাজেট পেশের একদিন আগেই সুখবর এল ভারতের অর্থনীতির জন্য। শুক্রবার সংসদে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক যে অর্থনৈতিক সমীক্ষার রিপোর্ট পেশ করতে চলেছে, তাতে ২০২০-২১ আর্থিক বছরে ভারতের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি ৬-৬.৫ শতাংশে গিয়ে  পৌঁছবে বলে পূর্বাভাস পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রকের একটি সূত্র। ফলে অবশেষে মন্দা কাটিয়ে উঠতে চলেছে ভারতীয় অর্থনীতি এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

চলতি বছরে অবশ্য ভারতের মোট উৎপাদন বা জিডিপি বৃদ্ধির বার ৫ শতাংশ বেশি উঠবে না বলেই পূর্বাভাস দিয়েছে পাঁচ এই অর্থনৈতিক সমীক্ষা। যা গত ১১ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম। ২০১৯ সালের জুলাই মাসের সমীক্ষায় অবশ্য দাবি করা হয়েছিল এই বৃ য়ের percent শতাংশের পূর্ব অনুমানের বিপরীতে বৃদ্ধির পরিমাণ হবে ৭ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের অর্থনীতিবিদদের একটি দল এই সমীক্ষা রিপোর্ট তৈরি করেছে। তাঁদের মতে দেশের জিডিপি-র বৃদ্ধি যে নিম্নমুখী ঢালে পড়েছিল, তা শেষ হতে চলেছে, নামতে নামতে এমন একটা জায়গায় এসে গিয়েছে, যার নিচে আর নামা যায় না, এখান থেকে বৃদ্ধির হার ঊর্ধমুখী হতে চলেছে। এই বছরের অর্থনৈতিক সমীক্ষার মূল বিষয়বস্তু হ'ল 'সম্পদ সৃষ্টি' এবং তার জন্য ১০টি নতুন পরিকল্পনা তৈরি।

ক্রমশ চাহিদা কমা ও বেসরকারী বিনিয়োগে ভাটার টান থাকায় জুলাই-সেপ্টেম্বর চতুর্তাশে অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হার নামতে নামতে ৪.৫ শতাংশে এসে দাঁড়িয়েছে। ২০১৩ সালের পর থেকে ভারতীয় অর্থনীতির বৃদ্ধির গতি এতটা দুর্বল হতে দেখা যায়নি। এই মাসের শুরুর দিকে, কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান মন্ত্রক জানিয়েছিল ২০১৯-২০ আর্থিক বছরে জিডিপি বৃদ্ধির সম্ভাব্য হার ৫.০ শতাংশ থাকবে। ২০১৮-১৯ সালে এই পরিসংখ্যান ছিল ৬.৮ শতাংশ।

গত বছর কেন্দ্রীয় বাজেটে কর্পোরেট করের হার কমানোর পর, এবার ব্যক্তিগত করে ছাড় এবং পরিকাঠামোগত উন্নয়নে সরকার বরাদ্দ বাড়াবে বলে আশা করা হচ্ছে। অর্থনৈতিক মন্দা সরকারের উপর দ্রুত অর্থনৈতিক সংস্কারের জন্য চাপ বাড়িয়েছে।