সিবিআইয়ের পর এবার  ইডি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে আনল। এফসিআরএর নথিভুক্ত  নিয়ম ও এফডিআই নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগে সিবিআই মানবাধিকার সংগঠনের বিরুদ্ধে আগেই অভিযোগে সিবিআই হিউম্যান রাইটস ওয়াচডগের বিরুদ্ধে এফবিআই নিথভুক্ত করে। পরে ইডি অ্যামনেস্টির বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ নিয়ে এসেছে। 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে একটি অভিযোগ পাওয়ার পর সিবিআই অ্যামনেস্টি  ভারতের বিরুদ্ধে ৫ নভেম্বর একটা অভিযোগ দায়ের করে।  এরপর ইডি একটা অভিযোগ দায়ের করে।  ভারতে অ্যামনেস্টি ভারতের চারটি অফিসে তল্লাশি চালানো হয়েছে।  সিবিআইয়ের তরফে এক  বিবৃতিতেত জানানো হয়েছ, আইআইপিলের মাধ্যমে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ব্রিটেন শাখা থেকে ভারতীয় শাখা ৩৬ কোটি টাকা অনুদান পেয়েছিল।  ব্রিটেনের অ্যামনেস্টির শাখা বেঙ্গালুরুর শাখাকে ১০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। 

 


ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের তরফে দাবি করা হয়েছে, অ্যামনেস্টি ইন্ডিয়া  এফডিআইয়ের আইন লঙ্ঘন করেছে।  বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে এফডিআই আইন অনুযায়ী চলতে অ্যামনেস্টি বাধ্য বলেও মন্তব্য করা হয়েছে। সিবিআই আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টির ভারতীয় শাখার কাছে বিদেশী অনুদানের বিস্তারিত জানতে চাওয়া হবে। অ্যামনেস্টির তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে,গত কয়েক  বছর ধরে  ভারত বার বার অ্যামনেস্টিকে হয়রানি করেছে।  ভারতে মানবাধিকার  লঙ্ঘন হলেও অ্যামনেস্টি বার বার সরব হয়েছে। সেই কারণেই ভারতে অ্যামনেস্টিকে বার বার হয়রানি হতে হচ্ছে। ভারতে আইন মেনেই যেকোনও কাজ হয়েছে বলে অ্যামনেস্টি দাবি করেছে।