আরও কমল ভারতের আটটি মূল শিল্পের বৃদ্ধির হার। কয়লা, অপরিশোধিত তেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, শোধনাগারজাত পণ্য, সার, ইস্পাত, সিমেন্ট এবং বিদ্যুত - চলতি বছরের জুলাই মাসে এই আটটি মূল শিল্পের বৃদ্ধির হার ছিল ২.১%। এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বরে তা নেমে এসেছে ১.৩ শতাংশে। দেশের মোট উৎপাদনের ৪০ শতাংশ আসে  এই আটটি শিল্প থেকে। কাজেই এই শিল্পগুলির বেহাল দশা মানে পুরো অর্থনীতিতেি বড় প্রভাব পড়া।

বৃদ্ধির হারের সূচক আরও কমার মূল কারণ হিসেবে দায়ী করা হচ্ছে কয়লা খনি শিল্পকে। গত বছর এই শিল্পে এই সময়ে বৃদ্ধির হার ছিল ৪.৩ শতাংশ। সেখানে এই বছর একই সময়ে তা নেমে এসেছে মাইনাস ২০.৫ শতাংশে, অর্থাৎ বদ্ধি তো হয়ইনি, বরং হ্রাস পেয়েছে উৎপাদন।

কেন্দ্রীয় শিল্প ও বানিজ্য মন্ত্রক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে এই আটটি শিল্পের সম্মিলিত সূচক রয়েছে ১২০.৬-এ, যা গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসের থেকে ৫.২ শতাংশ কম। গত জুলাই মাসের শেষে এই আট শিল্পের সম্মিলিত সূচক ছিল ১৩১.৯-তে।   

কয়লার পাশাপাশি গত বছরের একই সময়কালের তুলনায় উৎপাদন অনেকটা কমেছে অপরিশোধিত তেলেরও। এই ক্ষেত্রে উৎপাদন কমেছে ৫.৪ শতাংশ। প্রাকৃতিক গ্যাসের উৎপাদনও কমেছে ৪.৯ শতাংশ। পেট্রোলিয়ামজাত পণ্য়ের উৎপাদন কমেছে ৬.৭ শতাংশ। তবে বেড়েছে সারের উৎপাদন। এই ক্ষেত্রে বৃদ্ধি হয়েছে ৫.৪ শতাংশ এবং ইনডেক্সও গত বছরের তুলনায় একই সময়কালে ১.১ শতাংশ বেড়েছে ।

আর বিদ্যুত  শিল্পের ক্ষেত্রেও গতবছরের একই সময়ের তুলনায় উৎপাদন ৩.৭ শতাংশ কমেছে, তবে এই ক্ষেত্রে এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর মাসে কিউমুলেটিভ সূচক বেড়েছে গত বছরের তুলনায় ৩.৬ শতাংশ।