সোমবার সকালেই ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৮ জন কূটনীতিক দিল্লিতে পৌঁচেছেন। কাশ্মীর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে আলোচনা করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যরা।  মোদীর সঙ্গে  কূটনীতিকদের বাণিজ্য সংক্রান্ত আলোচনা হয় বলেও জানা গিয়েছে। মঙ্গলবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৮ কূটনীতিকরা আগামী কাল জম্মু ও কাশ্মীরে যাবেন বলে মনে করা হচ্ছে। 

 

সোমবায় নয়াদিল্লিতে কূটনীতিকদের সাদরে আমন্ত্রণ জানান  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।   তাঁদের সঙ্গে  সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আলোচনা হয় বলে জানা গিয়েছে। তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের কূটনীতিকদের সঙ্গে আলোচনায় বলেন,  সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যত দ্রুত সম্ভব কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। যে সমস্ত ব্যক্তি বা সংস্থা সন্ত্রাসবাদে অর্থ যোগান দিচ্ছে বা সমর্থন করছে, ভারত তাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে বদ্ধপরিকর। সন্ত্রাসের  জন্য জিরো টলারেন্স নীতি নেওয়ার আহ্বাণ জানান নরেন্দ্র মোদী। 

 

 ইউরোপীয় ইউনিয়নের কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকের পর  প্রধানমন্ত্রী বলেন,  বাণিজ্য নিয়ে আমাদের মধ্যে কথা হয়েছে। আমরা বাইল্যাটেরাল ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট চুক্তি (বিটিআইএ) ওপর গুরুত্ব দেব। ইউরোপীয়ান সংসদের সদস্য বিএন ডান জানান, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আমাদের ৩৭০ ধারা সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে বলেছেন। এই বিষয়ে আলোচনাও করেছেন। কিন্তু কাশ্মীর আদতে কী অবস্থায় আছে, তা আমরা নিজের চোখে দেখতে চাই। আমরা কালকে জম্মু ও কাশ্মীরে যাব।  কিছু স্থানীয় বাসিন্দার সঙ্গে আলোচনা করব। আমরা শুধু কাশ্মীরে শান্তি দেখতে চাই। কাল কাশ্মীরে যাওয়ার পরেই বুঝতে পারব, সেখানে কী পরিস্থিতি রয়েছে।