এগিয়ে আসছে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে ক্রমেই বাড়ছে উত্তেজনার পারদ। তৃণমূল-বিজেপি দ্বৈরথ একেবারে চরমে। একটু পিছিয়ে শুরু করলেও ময়দানে নেমে পড়েছে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসও। তবে এইবার বাংলার ভোটে এক্স ফ্যাক্টর হতে পারে আসাদুদ্দিন ওয়াইসির এআইমিম-ও, এমনটাই মনে করা হচ্ছে। বিহার নির্বাচনের পর থেকে  অনেকেই অভিযোগ করছেন ওয়াইসির বিজেপি বিরোধিতা আসলে মুখোশ। গোপনে গোপনে তিনি 'বিজেপি-র এজেন্ট' হিসাবে কাজ করছেন। বাংলার নির্বাচনের আগেও সেই অভিযোগ উঠছে। আর এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হল বিজেপি নেত্রী তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি-র সঙ্গে তাঁর একটি ছবি। দবি করা হচ্ছে এই ছবিই বিজেপি-এআইমিম 'গটাপ গেম'এর প্রমাণ।

দিন কয়েক আগে 'অভিষেক ব্যানার্জী সাপোর্টার্স' নামে একটি ফেসবুক পেজের পক্ষ থেকে আসাদুদ্দিন ওয়াইসি ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির একটি ছবি সম্বলিত গ্রাফিক্স পোস্ট করা হয়েছে। গ্রাফিক্সে ব্যবহার করা ছবিটিতে ওয়াইসি ও ইরানি-কে একটি করিডোরে কোনও এক বিষয়ে কথা বলতে দেখা গিয়েছে। ওই গ্রাফিক্সে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-এর সাদাকালো ছবিও ব্যবহার করা হয়েছে। তাদের ছবির মুখের উপর লাল রঙ ব্যবহার করে রক্তের ছিটেও তৈরি করা হয়েছে। সেইসঙ্গে গ্রাফিক্সটিতে লেখা হয়েছে, 'প্রমাণ যখন কথা বলে - ওয়েসি স্মৃতি - জাস্ট ফেরেন্ড! এরা বিহার সহ অন্যান্য রাজ্যের মানুষকে ইতিমধ্যেই টুপি পরিয়েছে, এবার টার্গেট বাংলা। মিম-বিজেপি'র পুরোটাই গটাপ গেম। এদের ফাঁদে পড়েছেন, কি - মরেছেন!'

বাংলার নির্বাচনের আগে স্বাভাবিকভাবেই এই পোস্টটি ভাইরাল হয়েছে। বহু মানুষ পোস্টটি শেয়ার করেছেন। কিন্তু, সত্যিই কি আসাদুদ্দিন ওয়াইসি ও স্মৃতি ইরানির ওই ছবিটি বিজেপি-এআইমিম'এর গোপন আঁতাতের প্রমাণ?

এশিয়ানেট নিউজ বাংলার পক্ষ থেকে, এই ছবিটি নিয়ে বিপরীত তথ্যানুসন্ধান চালানো হয়। তাতে দেখা যায়, এই একই ছবি একইরকম দাবি নিয়ে পোস্ট করা হয়েছিল ২০২০ সালের নভেম্বরের শেষ ও ডিসেম্বরের শুরুর দিকে। সেই সময় ছিল হায়দরাবাদের পুরসভার নির্বাচন ছিল। আরও অনুসন্ধানে দেখা যায়, ছবিটি ইন্টারনেটে প্রথম দেখা গিয়েছিল ২০১৬ সালে। ওই বছর অগাস্ট মাসে ওয়াইসি দিল্লিতে বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানির সঙ্গে একটি বৈঠক করেছিলেন। ১০ অগস্ট তারিখে ওয়াইসি নিজেই টুইট করে স্মৃতি ইরানির সঙ্গে তাঁর বৈঠকের কথা উল্লেখ করেছিলেন। জানিয়েছিলেন, 'মাননীয় বস্ত্রমন্ত্রী'র সঙ্গে  'মহারাষ্ট্র ও দেশের অন্যত্র চলা বস্ত্র বয়ন শিল্পের সঙ্কট' বিষয়ে তিনি আলোচনা করেছেন।

ওই বৈঠকের আরও বেশ কয়েকটি ছবি পাওয়া গিয়েছে, যেখানে ভাইরাল হওয়া ছবিটিতে ওয়াইসিকে যে পোশাক পরতে দেখা গিয়েছে, সেই একই পোশাকে দেখা গিয়েছে। এমনকী ২০১৬ সলের ২৩ অগাস্ট ওয়াইসিকেও ওই ছটি বিষয়ে টুইটে জবাব দিতে দেখা গিয়েছে। বিজেপির সমালোচনা করেও কেন স্মৃতি ইরানির সঙ্গে ঘোরাফেরা করছেন, সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল কংগ্রেস। জবাবে কংগ্রেস নেতার পোস্ট করা টুইটটি কোট করে ওয়ইসি পাল্টা প্রশ্ন তোলেন, কংগ্রেস নেতারা কেন বস্ত্র বয়ন শিল্পের সঙ্কট' বিষয়ে ওই আলোচনায় অংশগ্রহণ করেননি?

কাজেই ওয়াইসি-ইরানির ভাইরাল হওয়া ছবিটি যে বস্ত্র বয়ন শিল্পের সঙ্কট বিষয়ে হওয়া ২০১৬ সালের ওই বৈঠকের, তা স্পষ্ট। ইদানিং কালের মধ্যে স্মৃতি ইরানির সঙ্গে এআইমিম প্রধান কোনও বৈঠক করেছেন, এমনও কোনও খবর পাওয়া যায়নি। তাই, এই এশিয়ানেট নিউজ এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে যে ছবিটি কোনওভাবেই বিজেপি-এআইমিম দলের গোপন আঁতাতের প্রমাণ নয়। বিশেষ উদ্দেশ্যে একটি নিরীহ বৈঠকের ছবি তুলে ধরে ভুয়ো দাবি করা হয়েছে।