উত্তরপ্রদেশের চান্দৌলি জেলায় এক ১৭ বছরের মুসলিম যুবককে জোর করে 'জয় শ্রীরাম' বলানোর চেষ্টা। না বলতে চাওয়ায় তাঁর গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু, পুলিশ বলছে ঘটনাটা পুরোটা এইরকম নাও হতে পারে। কারণ আগুনে পুড়ে যাওয়া খালিদ নামের ওই যুবক ও তাঁর পরিবারের কথা অনেক সময়ই মিলছে না। তাঁদের বক্তব্। পরস্পরবিরোধী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে চান্দৌলির এসপি জানিয়েছেন, খালিদ ৪৫ শতাংশ দহন নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন জনের কাছে সে বিভিন্ন কথা বলেছে। তাতেই তাঁদের সন্দেহ হয়। তাঁরা মনে করছেন এটা সাজানো ঘটনা। পুলিশ সিসিটিভিফুটেজ পরীক্ষা করে দেখেছে, খালিদ যে যে জায়গায় ছিল বলে দাবি করেছিল সেখানে তাকে দেখা যায়নি। এপ্রত্যক্ষদর্শীর দাবি খালিদ নিজেই গায়ে আগুন ধরিয়েছে।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সাম্প্রতিক সময়ে জোর করে জয় শ্রীরাম বলানো এবং তাকে কেন্দ্র করে গণহিংসার বেশ কিছু ঘটনা ঘটেছে। এই বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি দিয়েছিলেন ৪৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি। তারপর তাদের পাল্টা চিঠিতে আক্রমণও করেছেন আরেক অংশের বুদ্ধিজীবী। তার মধ্যেই খালিদের এই ঘটনাটি নতুন মাত্রা যোগ করল। তদন্ত শেষ হলেই জানা যাবে, খালিদ ও তার পরিবার যা দাবি করছে, তাই কি ঘটেছিল, নাকি কোনও অসৎ উদ্দেশ্যে ঘটনাটি সাজানো হয়েছে।