বিতর্কিত কৃষি বিল হাত শক্ত করবে পাক গুপ্তচরদের। কৃষকরা যোগ দেবেন সন্ত্রাসবাদে। সোমবার কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনা করে এমনই গুরুতর অভিযোগ তুললেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। সেইসঙ্গে সদ্য রাষ্ট্রপতির সম্মতি পাওয়া কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইনগুলিকে তিনি 'দেশবিরোধী' বলে অভিহিত করেছেন। কারণ, নয়া আইনে জীবন-জীবিকা হারিয়ে কৃষকরা পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের একটি সহজ নিশানায় পরিণত হবে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

সোমবার পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী বিতর্কিত কৃষি আইনগুলির বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অংশ নিতে পঞ্জাবের শহীদ ভগত সিং নগরের খাটকর কালান এলাকায় এসেছিলেন। খাটকর কালান গ্রামে শহীদ ভগত সিং-এর ১১৩ তম জন্মবার্ষিকীতে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধাও নিবেদন করেন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন, এআইসিসির সাধারণ সম্পাদক এবং পঞ্জাব কংগ্রেসের ইনচার্জ হরিশ রাওয়াত, পঞ্জাব কংগ্রেসের প্রধান সুনীল জখর এবং অন্যান্য কংগ্রেস নেতৃবৃন্দ।  

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে মুখ্য়মন্ত্রী অমরিন্দর সিং বলেন, পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই, সহজেই বন্দুক এবং গ্রেনেড ধরানো যায় এমন লোকেদের সন্ধানেই ওঁত পেতে থাকে। তিনি জানান, গত তিন বছরে পঞ্জাবে প্রায় দেড়শ'রও বেশি সন্ত্রাসবাদীকে ধরা হয়েছে এবং পঞ্জাবের সবকিছু শান্তিপূর্ণ রয়েছে। কিন্তু, কিন্তু, পেটে টান পড়লে মানুষের মনে ক্ষোভ জন্মায়। আর সেই সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ মানুষই 'আইএসআই-এর টার্গেটে' পরিণত হয়, বলে দাবি করেছেন তিনি।

নয়া কৃষি আইন, কৃষকদের জীবন-জীবিকা 'ধ্বংস' করবে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি। কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'এই সরকার যা করেছে তা দেশবিরোধী'। রাষ্ট্রপতি এই বিলগুলি পাস করলেও, পঞ্জাব সরকার এই নতুন কৃষি আইন ইস্যু নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের যাবে বলে জানিয়ে দেন অমরিন্দর সিং। তাঁর আরও অভিযোগ, বিজেপি-র নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যগুলির অধিকার ছিনিয়ে নিচ্ছে।