'শক্তিই জীবন, দুর্বলতা মৃত্যু। প্রসারতাই জীবন, সংকোচনের অর্থ মৃত্যু'। বৃহস্পতিবার ফিট ইন্ডিয়া ডায়ালগ ২০২০-র ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে 'নিউ ইন্ডিয়া, ফিট ইন্ডিয়া' গড়ার কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মুখে উঠে এল যৌবনের মূর্ত প্রতীক স্বামী বিবেকানন্দের কথা। স্বামীজির বাণীর মাধ্যমেই ভারতবাসীকে ফিটনেসের গুরুত্ব ব্যাখ্যা করলেন প্রধানমন্ত্রী।

বিরাট কোহলি থেকে মিলিন্দ সোমান - ফিটনেস নিয়ে উৎসাহী ভারতের সেলিব্রিটিদের সঙ্গে ফিটনেসের বিষয়ে আলোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, সাধারণত, বাবা-মায়েরাই সন্তানদের সুঅভ্যাসের শিক্ষা দিয়ে থাকেন। তবে ফিটনেসের ক্ষেত্রে বিপরীত প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। তরুণরাই তাদের বাবা-মাকে শেখাচ্ছে, এই বিষয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছে। মোদী আশা প্রকাশ করেন আরও বেশি মানুষ 'ফিট ইন্ডিয়া' আন্দোলনে যোগ দেবেন। তিনি বলেন, ভারত যত বেশি 'ফিট' হয়ে উঠবে, তত বেশি 'হিট ভারত' হয়ে উঠবে।

তবে শুধু শারীরিক ফিটনেসই নয়, এদিন প্রধানমন্ত্রী মোদী জোর দিয়েছেন মানসিক স্বাস্থ্যের গুরুত্বের বিষয়েও। সম্প্রতি তরুণ বলি অভিনেতা সুশান্ত সং রাজপুত-এর প্রয়াণের ঘটনা গোটা ভারতকে নাড়িয়ে দিয়েছে। ঠিক কী কারণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে, সেই বিষয়ে তদন্ত চলছে। তবে জানা গিয়েছে, তাঁর মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যা ছিল। শুধু সুশান্ত সিং-ই নয় সাম্প্রতিক সময়ে যুব সমাজের মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্যগত সমস্যা গুরুতর হয়ে দেখা দিয়েছে। এই অবস্থায প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, 'স্বাস্থ্য সুন্দর হলে, মনও শান্ত থাকে' এই প্রবাদটির বিপরীতটিও সত্য।